সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৪১ অপরাহ্ন

রাঙ্গামাটি জেলা যুবলীগের সম্পাদক কাজলের বিরুদ্ধে এক নারীকে ধর্ষণ করে অন্তসত্তা করার অভিযোগ

রাঙ্গামাটি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর মোহাম্মদ কাজলের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক নারীকে ধর্ষণ করে অন্তসত্তা করার অভিযোগ উঠেছে। আজ রাঙ্গামাটি জজ আদালতে হাজির হয়ে ঐ নারী নুর মোহাম্মদ কাজলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতে চাইলে আদালত রাঙ্গামাটি কোতায়ালী থানায় মামলা দায়েরের পরামর্শ প্রদান করেন। রাতে রাঙ্গামাটি কোতায়ালী থানায় মামলার জন্য গেলে থানায় বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান ।
অভিযুক্তা তার অভিযোগে বলেন, নুর মোহাম্মদ কাজল রাঙ্গামাটি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক দীর্ঘদিন ধরে আমাকে বিবাহ করবে বলে আশ্বস্ত করে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক করেন। অভিযুক্ত কাজল গত ৭ আগষ্ট ২০১৯ তারিখ দুপুরে তার কাঠালতলীস্থ ঠিকাদারী অস্থায়ী অফিসে নিয়ে গিয়ে একজন হুজুরকে এনে দোয়া পরেন। আমি কাবিন করতে চাইলে তিনি আমাকে কাবিন দিয়ে কী হবে এবং বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। উক্ত তারিখের পর থেকে স্বামী বলে সবাইকে বলেন এবং আমি সরল বিশ্বাসে তাকে স্বামী বলে মনে করি। নুর মোহাম্মদ কাজলের সাথে আমি নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক করে। এর পর আমি কাবিন চাইলে তিনি আমাকে বলেন কাবিন দিয়ে কী হবে কাবিনের দরকার নেই। আমাকে বিবাহের মিথ্যা নাটক সাজিয়ে বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে দিনের পর দিন নিয়মিত ধর্ষণ করে। আমি বিষয়টি সমাজের মানুষকে জানাতে চাইলে গত ১৯ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে বিমানে করে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম নিয়ে আসে।
অভিযোগের আরো উল্লেখ করেন, গত ১ আগষ্ট ২০২১ তারিখে মোবাইলে আমাকে বলেন, আমার শাররিক অবস্থা ভালো না, আমাকে কেমন যে লাগছে। আমি গর্ভধারণ করেছি মনে হয়। ১ নং বিবাদী বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে যায়। পরে আমার ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে জানায় যে আমি তোমাকে স্বীকৃতি দিতে পারছি না। সুতরাং তুমি তোমার সুবিধামত যে কোন সিদ্ধান্ত নিলে আমার কোন আপত্তি থাকবেনা। এছাড়া তিনি আমাকে বিভিন্ন লোকের মাধ্যমে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আমার জীবনকে ধ্বংস করে দেয়।
১ নং বিবাদী আমাকে বিবাহের প্রলোভন দিয়ে এবং ১ বিদায়ী জানে যে আমি তার স্ত্রী নয় বলে আমাকে মানিসক ভাবে চাপ দিতে থাকে। ইতিপূর্বে তিনি আমাকে তালাক দিতে বাধ্য করে। আমি বর্তমানে ১ নং বিবাদী কর্তৃক শাররিক সম্পর্কের মাধ্যমে গর্ভবতী হয়ে যায়। যার ডাক্তারী রিপোর্ট আমার কাছে রয়েছে। যা আমি আদালতে প্রদর্শন করেছি।
তিনি অভিযোগে আরো বলেন, ১৫ লক্ষ টাকা ধার নিয়ে চেক প্রদান করে। আমি একজন অসহায় নারী হিসেবে আসামীগণকে এহেন নেক্কার জনক অপরাধের ন্যায় বিচার প্রার্থনা করি।
এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি সদর সার্কেল তাপস রঞ্জন ঘোষের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অভিযুক্তকারী মুনিরা জাহান নাজমা আমাদের কাছে এসেছে। আমরা তার কাছ থেকে ঘটনার বর্ণনা শুনছি এবং প্রয়োজনে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
এই বিষয়ে রাঙ্গামাটি কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ কবির হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,অভিযোগ নিয়ে এসেছিল। কিছু সংশোধন করতে হবে তাই অভিযোগ গ্রহণ করা যায় নােই, সংশোধনের পর অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
নুর মোহাম্মদ কাজলের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমি শুনেছি সএক মহিলা আমার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ করেছে। অভিযোগ ভিত্তিহীণ । আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ আমাকে হেয় করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com