বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন

শিরোনাম
রাঙ্গুনিয়ার তৃণমুল আওয়ামী লীগ নেতা কাশেমের মৃত্যুতে তথ্য মন্ত্রীর শোক করোনায় কর্মহীন হয়ে পড়া লোকজনদেরকে সহায়তার আওতায় আনা হয়েছে – ডিসি চট্টগ্রাম জেলা চট্টগ্রামে এসে পৌঁছেছে মর্ডানা ও সিনোফর্মের আরও ১ লাখ ৮৫ হাজার ২’শ ডোজ কোভিড-১৯ ৫০০ কর্মজীবী ও নির্মাণ শ্রমিকের মাঝে আ জ ম নাছিরের ত্রাণ সহায়তা ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২৩৭ জনের মৃত্যু লকডাউনকালীন অসহায় শিশু ও গরীব দুঃস্থদের মাঝে চট্রগ্রাম নাগরিক ঐক্যর পক্ষ থেকে রান্না করা খাবার বিতরণ চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী, নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছে এশিয়ান স্পেশালাইজড হসপিটাল আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ আল্লামা মুফতি ইদ্রিছ রেজভীর ইন্তেকাল জাপা নেতা তপন চক্রবর্ত্তীর মৃত্যুতে উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির শোক প্রকাশ

প্রেমের অনির্বাণ শিখা চিরদিন জ্বলে, স্বর্গ হতে আসে প্রেম স্বর্গে যায় চলে….


সৌমেন ধর

ফাগুনের এই কৃষ্ণপক্ষের চতুর্দশ তিথিতে কুয়াশা থাকার কথা নয়- কিন্তু এই রাতে- এই বেদনাবিদূর রাতে কেমন কুয়াশা চারিদিকে। কেন এতো কুয়াশা ? মন বললো- কুয়াশা না হলে শিশির হবে কি করে ? শিশিরের ছোঁয়া না পেলে শিউলি ঝরবে কি করে। হ্যাঁ হৃদয় বিদীর্ণ করে তুই চলে যাবি বলে প্রকৃতিও প্রস্তুত ছিলো দেখে আমার কি বলার থাকে। যে রাতে রমনীরা সব স্বামী সন্তানের কল্যান কামনায় ব্রত মেনে চলে এমন পবিত্র রাতে তোর শেষযাত্রা- তোর শব যাত্রা দেখে কি আর বলার থাকে। তুই তো সেখানেই যাবি যেখান থেকে তোর জীবনের পবিত্র অনুভুতি নিয়ে এক আলোকিত যাত্রা হয়েছিল শুরু কাননের সাথে। একটি কাননের তুই একটাই ফুল- শিউলি….। তুই চলে গেলি…..?
অনেক প্রশ্নের জবাব না পেয়ে খুঁজতেও চাইনা আর। যেমন খুঁজিনি মাত্র একদিন আগে তোদের যুগল ছবিটিতে যখন কানন ভালোবাসার অনুভুতি প্রকাশ করলো। এটি পোস্ট করার তারিখ দেখাচ্ছিল নভেম্বর মাসে। কিছু না লিখে আমি কখন ছবিটি পোস্ট করলাম- কাননইবা কেন এতোদিন পর রিয়্যাক্ট করলো- এই প্রশ্নগুলো ঘুরপাক খাচ্ছিলো- কিন্তু আমি উত্তর খুঁজতে চাইনি। আমি কি এটাও জানতাম- মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে সকল প্রশ্নের সীমারেখা ভেদ করে চলে যাবি তুই। দোলন না জানালে আমি তোকে শেষ দেখাও দেখতাম না। আমি তোকে এভাবে দেখতে চাইনি- উজ্জ্বল, বিপুলসহ আর যারা গেছে- জাহিদসহ আরো যেতে পারেনি তারা কেউই চায়নি রে শিউলি- কেউ চায়নি। কানন আগাগোড়া স্বাভাবিক- আমিও নির্বাক ছিলাম। কিন্তু যে মেয়ের ভবিষ্যত নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকতি তুই সেই মেয়েটি যখন তোর নিথর শরীরের সামনে তোর অবুঝ ছেলেকে জড়িয়ে চিৎকার করে বললো- ‘ মা- মাগো ভেবোনা- তোমার ছেলেকে আমি দেখে রাখবো মা। আমাকে একটু আদর করোনা মা।’ আমার ভেতরের সবটুকু কে যেন দলা পাকিয়ে কান্না করে বের দিলো। দোলন বললো- আমাদের স্মৃতিবিজড়িত এক ঐতিহাসিক প্রেমের সমাপ্তি হলো। আজকাল আমি একা কাঁদতে ভালোবাসি। তাই ফিরে এলাম, আর রাতের নৈশব্দে ঢেলে দিলাম অজস্র তপ্ত জল। তুই ভালো থাকিস রে মেয়ে অনেক ভালো থাকিস। তোর প্রতি সকলের ভালোবাসা যেন আশীর্বাদ হয়ে ঘিরে রাখে তোর দুটি সন্তানের সমগ্র জীবনে। #
পুণশ্চ : কেবলই মনে পড়ছে এই সেদিন তোর ঘন্টার পর ঘন্টা মোবাইলে কথা বলা। বার বার অভিমানি সুরে বলা- কেমন নিষ্ঠুর তুমি দাদা- একটা কলও করোনা (সত্যিই আমরা নিষ্ঠুর। বর্বর রকমের নিষ্ঠুর)। আর সেই আনন্দের উচ্ছাস আমার স্ট্যাটাসে তোর প্রতি সকলের ভালোবাসা দেখে। সব আজ অর্থহীন জাজ্বল্যমান স্মৃতি…..।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com