মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:০২ পূর্বাহ্ন

লাইফ সাপোর্ট


ইঞ্জিনিয়ার জাভেদ আবছার চৌধুরী

যখন শরীরের এক বা একাধিক অঙ্গপ্রত্যঙ্গ নষ্ট হয়ে যায় তখন জীবন বাঁচিয়ে রাখার তাগিদে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ব্যবহার করে তাকে টিকিয়ে রাখা হয়। এটাকেই লাইফ সাপোর্ট বলে।
মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ বা তন্ত্রকে যথেষ্ট সময় দেওয়া যাতে ঐ অঙ্গটি পুনরায় কর্মক্ষম হয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসতে পারে অথবা অবস্থা ভেদে ট্রান্সপ্লান্টেশনের মাধ্যমে প্রতিস্থাপিত হতে পারে।
অঙ্গগুলির মধ্যে হার্ট, লাংস, কিডনী ইত্যাদিই প্রধান তবে কৃত্রিমভাবে শরীরের পুষ্টি, পানি এবং লবণের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করাও লাইফ সাপোর্টের আওতায় আসে।
লাইফ সাপোর্ট বলতে সাধারণত আই. সি. ইউ কে বোঝানো হয়।
ইসলামী তকদীর অনুযায়ী প্রত্যেক মানুষ একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বেঁচে থাকবে। যখন হায়াত শেষ হবে দুনিয়ার কোন সাপোর্ট দিয়েই তাকে বাঁচিয়ে রাখা যায় না। রুহ্ কে কখনই আটকে রাখা যায় না। লাইফ সাপোর্ট রোগীর জীবন ধারন করার পদ্ধতিকে সহজ করে দেয়। কিন্তু রোগীর হায়াত শেষ হলে কোনো সাপোর্ট ই কাজে আসে না তবে আমরা চেস্টা করে থাকি এবং অনেক সময় দেখা যায় মহান রাব্বুল আলামিনের করুণায় খুব কম সংখ্যক রোগী স্বাভাবিক অবস্থায় সুস্থ হয়ে ফিরে আসে এবং এই ধরনের কেইজকে সম্পূর্ণরূপে অলৌকিক বলা যেতে পারে।
লাইফ সাপোর্ট এ রোগীর বিশেষ কেয়ার নেওয়া হয়।
যেটা অনেক ব্যায় বহুল। যা গরীব দের নাগালের বাইরে। রোগী ভর্তি করার আগে বিষয় গুলো ভাবতে হবে।
মধ্যবৃত্তদের জন্যও ব্যয়বহুল।
তবে চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতাল পরিচালনা পরিষদের উদ্যোগে দেশের অন্যান্য বেসরকারি হাসপাতাল গুলোর তুলনায় অত্যন্ত মানবিক কারনে আমাদের এখানে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে অত্যন্ত কম খরচে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়।
আমাদের এখানে আইসিইউ চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু করার নিমিত্তে সর্বোচ্চ ভূমিকা রেখেছিল বর্তমান পরিচালনা পরিষদের সম্মানিত প্রেসিডেন্ট (ভারপ্রাপ্ত) করোনা যোদ্ধা আলহাজ্ব এস এম মোরশেদ হোসেন ও ডায়নামিক ট্রেজারার সর্বজন শ্রদ্ধেয় করোনা যোদ্ধা আলহাজ্ব রেজাউল করিম আজাদ এবং বর্তমান পরিচালনা পরিষদের সামনে সারির ১০ জন করোনা যোদ্ধাদ্ধয়।

পুনশ্চ: আমার শ্রদ্ধেয় পিতা মরহুম নুরুল আবছার চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সহচর সাতকানিয়ার নুরুল আবসার সাহেবের পরিবারের সদস্য আমাদের এখানে ভর্তি হয়ে লাইফ সাপোর্টে থাকাতে অনুরোধের পেক্ষাপটে দেখতে গিয়েছিলাম।

তাছাড়া পশ্চিম মাদারবাড়ি সাবেক কমিশনার ও হাসপাতালের আজীবন সদস্য জয়নাল সাহেবের ছোট বোন এবং আমার পারিবারিক বন্ধু আজাদ, সাখাওয়াত ও সরোয়ারের পরম স্নেহের আম্মাজান বর্তমানে লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
মার প্রতি ভক্তি এবং মাকে বাঁচিয়ে তোলার জন্য সন্তানদের আহাজারি এবং অন্যান্য রোগীদের অবস্থা দেখে আবেগ আপ্লুত হয়ে যেতে হয়।
মহান সৃষ্টিকর্তা রব্বুল আলামীনের নিকট দোয়ার আর্জি এই যে তিনি যেন আমাদের এখানে চিকিৎসাধীন সকল রোগীকে সুস্থ করে তাহাদের পরিবারবর্গের নিকট ফিরে যাওয়ার তৌফিক দান করুক।
আমিন।। ছুম্মা আমিন ।।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com