মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন

ঝরে পড়া শিশুদের শিক্ষার আওতায় আনতে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে – ডিপিইও

চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার (ডিপিইও) মোঃ শহীদুল ইসলাম বলেছেন, মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। একটি দেশ কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে গেলে কেউ নিরক্ষর থাকতে পারবেনা। এজন্য এখন থেকে সুষ্ঠু জরীপের মাধ্যমে সমাজের ৮ থেকে ১৪ বছর বয়সী সুবিধা বঞ্চিত ও ঝরে পড়া নিরক্ষর শিশুদের শিক্ষার আওতায় আনতে সরকারের পাশাপাশি আহ্ছানিয়া মিশনের মত বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থাকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। সকল নিরক্ষর শিশুকে স্বাক্ষরজ্ঞান সম্পন্ন করে তোলার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে সঠিকভাবে সেন্টার নির্বাচন করতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষক ও দপ্তরি নিয়োগের বিষয়টিও সঠিকভাবে হতে হবে। এক শিক্ষার্থী যাতে পৃথক প্রতিষ্ঠনে ভর্তি হয়ে সুবিধা আদায় করতে না পারে সে বিষয়েও সতর্ক থাকতে হবে। আমরা সকলে আন্তরিক হলে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা আগামী ২০৩০ সালে এসডিজি অর্জন ও ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ সম্ভব হবে। আজ ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ ইংরেজি মঙ্গলবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম জেলা শিশু একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ‘আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন কর্মসূচী বাস্তবায়ন’ বিষয়ক থানা পর্যায়ের অবহিতকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
চট্টগ্রাম জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহযোগিতায় ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন সভার আয়োজন করেন। জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক জুলফিকার আমিনের সভাপতিত্বে ও ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের এরিয়া ম্যানেজার চন্দন কুমার বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের চীফ অব এডুকেশন মোঃ সাহিদুল ইসলাম, শিশু একাডেমির জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ নূরুল আবছার ভূঁইয়া ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের (চসিক) ৭নং পশ্চিম ষোলশহর ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর মোবারক আলী। আউট অব স্কুল চিলড্রেন প্রোগ্রামের ধারণা উপস্থাপন করেন ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের জেলা এডুকেশন ম্যানেজার (ডাম) এস.এম কামরুল ইসলাম। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সিইউজে’র সদস্য সাংবাদিক রনজিত কুমার শীল, থানা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শফিকুল হাসান (চান্দগাঁও), মির্জা নুরুন্নাহার (কোতোয়ালী), মোঃ মাহামুদুজ্জামান (ডবলমুরিং), সেলিনা আখতার (বন্দর), রেজুয়ারা বেগম (পাহাড়তলী), ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশনের প্রোগ্রাম ম্যানেজার সাইফুল করিম, বেসরকারী এনজিও সংস্থা ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরাম’র প্রধান নির্বাহী উৎপল বড়ুয়া, ঘাসফুল’র উপ-পরিচালক মফিজুর রহমান, ব্র্যাক’র রিজিওনাল ম্যানেজার মাহাবুব হোসেন, যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থার প্রতিনিধি মাহিন আহমদ, প্রধান শিক্ষক শামীম আরা আক্তার জাহান, তাহমিনা শারমিন, আনোয়ার হোসেন, শাহীন আকতার চৌধুরী, তরুনা মল্লিক, জ্যোস্না বেগম, সোমা দত্ত, ডাম’র সাইফুল করিম প্রমূখ। সভায় বিভিন্ন এনজিও সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।
চট্টগ্রাম জেলা উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক জুলফিকার আমিন জানান, সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর পাঁচ বছর মেয়াদী চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচীর (পিইডিপি-৪ ) সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রামের সময়কাল ২০১৮ সালের ১ জুলাই থেকে ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত। প্রকল্পটির বাস্তবায়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠানসমূহের মধ্যে রয়েছে নেতৃত্বদানকারী সংস্থা ঢাকা আহ্ছানিয়া মিশন, সহযোগী-যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা, অপকা, ব্রাইট বাংলাদেশ ফোরাম, সততা, জাগোনারী, ক্যাপ, রুপা ও জিকেকে।
তিনি আরো জানান, চট্টগ্রাম জেলার ১২টি উপজেলা যথাক্রমে-রাঙ্গুনিয়া, সীতাকুন্ড, মীরসরাই, পটিয়া, বাঁশখালী, বোয়ালখালী, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, হাটহাজারী, রাউজান, চন্দনাইশ ও কর্ণফুলী উপজেলা এবং সিটি কর্পোরেশন এলাকার চান্দগাঁও, কর্ণেল হাট, বাকলিয়া, সদরঘাট ও ষোলশহর অঞ্চলে সুবিধাবঞ্চিত ঝরে পড়া ৮ থেকে ১৪ বছর বয়সী নিরক্ষর শিশুদেরকে শিক্ষার মূল ধারায় সম্পৃক্ত করতে প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে। সকলের আন্তরিক সহযোগিতা পেলে পিইডিপি-৪ এর সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন সম্ভব হবে।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com