শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১১:১৮ পূর্বাহ্ন

চেতনানাশক ইনজেকশনেই সর্বস্ব হারালো কোরআনে হাফেজ নজরুল: ভিটে বাড়ীও দখলে নিতে মরিয়া ভয়ংকর সন্ত্রাসীরা

কোরআনে হাফেজ নজরুল ইসলাম কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলার একটি সাধারণ পরিবারের সন্তান। একজন আলেম ও মসজিদের ইমাম। অভাবের সংসারে এক টুকরা জমি বিক্রিই তার জীবনের কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে আজ। জমি বিক্রির সমস্ত টাকা হাতিয়ে নেয়ার পাশাপাশি জানে মেরে ফেলারও চেষ্টা করছে পেকুয়া যুবলীগের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড আজমগীর ওরফে আজিম্যা বাহিনী। তাদের অপকর্মে বিব্রত স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। জমি দখল, চাঁদাবাজি, ছিনতাই, ধর্ষণ, ইয়াবা ও অস্ত্র ব্যবসাসহ বিভিন্ন বেআইনি কর্মকান্ডে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা সাধারণ মানুষের কাছে নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছেন।
আজ ২০ ফেব্রুয়ারী দুপুর সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে উপজেলার পেকুয়া সদরের স্থানীয় মসজিদের ইমাম কোরআনে হাফেজ নজরুল ইসলাম এমন অভিযোগ করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি জানান, আমি এবং আমার স্ত্রী ও আমার অবুঝ শিশুটিকেও আজ জানে মেরে ফেলার হুমকী দিয়ে যাচ্ছে তারা। আমার পরিবারের উপর নির্যাতন করেনি এমন কিছু বাকী রাখেনি যুবলীগের কথিত উপজেলা সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড আজিম্যা বাহিনী। জাহাঙ্গীর আলমসহ এই সন্ত্রাসী বাহিনী যুবলীগে ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপি ও জামায়াতের এজেন্ট।

হাফেজ মাওলানা নজরুল ইসলাম আরও জানান, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং প্রতিটি ইউনিয়ন ও সংগঠনের শাখা নেতৃবৃন্দ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাবরে একপত্রে জাহাঙ্গীর আলমকে বহিঃস্কারের দাবি জানিয়েছেন। ওই পত্রে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ লিখেছেন, যুবলীগ নামধারী জাহাঙ্গীর আলম প্রকাশ গরু জাহাঙ্গীর দীর্ঘদিন ধরে সংগঠন বিরোধী কর্মকান্ডসহ দখলবাজি, চাঁদাবাজি, লুটপাট, দলীয় নেতা-কর্মীদের অত্যাচার নির্যাতন, বিএনপি জামায়াত তথা এপিএস সালাহ উদ্দিনের সাথে আতাঁত করে দলীয় মিটিং-মিছিলে হামলা এমনকি জনপ্রিয় আওয়ামীলীগ নেতাদের হত্যার মিশনে জড়িত।
তিনি জানান, আমার প্রতিবেশীর কাছে ১৪ শতক জমি বিক্রি করার পর আমার উপর নেমে আসে অমানুষিক নির্যাতন। জমি বিক্রির সেই টাকার উপর তাদের লুলুপ পড়ে। জমি ক্রেতা নুরুল আমীনকে সাথে নিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর ও তার ভাই আজমগীর জমি বিক্রির টাকার ভাগ তাদের দেয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে। এও বলে যে, সাব রেজিষ্ট্রারের জন্যও তিন লক্ষ টাকা দাবী করে তারা। তাদের চাহিদা মতো টাকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় বিগত ১৫ জুলাই ২০১৮ইং সকাল ১০ঘটিকার উপজেলা চেয়ারম্যানের পালিত সন্ত্রাসী নুর মোহাম্মদ গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে বলে ঐ বাহিনীর চৌমুহনী আজীজ কলোনীস্থ তাদের (গোপন টর্চারসেল) ভাড়া বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তারা আমাকে আটকিয়ে ফেলে। আমার হাত পা বেঁধে ব্যাংকে জমা দেয়ার জন্য নেয়া নগদ ৫,০০,০০০/- (পাচঁ লক্ষ) টাকা ছিনিয়ে নেয়, জমির বিক্রির বাকী টাকার সন্ধান দিতে আজমগীর গুলি করে মেরে ফেলার ভয় দেখায় এবং তাদের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে জমি বিক্রির টাকা ব্যাংকে আছে বলে জানায়, খানিক পরে তারা আজমগীর ও নূর-মোহাম্মদসহ আরো কয়েকজন মিলে জোরপূর্বক আমাকে চেতনা নাশক ইনজেকশন পোষ করে আমাকে ৫ দিন তাদের টর্চারসেলে আটক রাখে। ১৮/০৭/২০১৮ইং তারিখ রাত ৮টার দিকে পেকুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার জিয়া উদ্দিনকে (আজিজ কলনিস্থ তাদের টর্চারসেলে) নিয়ে আসে, আমার জ্ঞান আসলে আমি মেডিক্যাল আফিসার ডাঃ জিয়া সহ সকল অপহরণ কারিকে দেখতে পাই। তখন আমার শরীরে একটি চলমান স্যালাইন পোষ করা ছিল। এরপরের দিন তাদের র্প্বূ পরিকল্পনা মতে সাব রেজিষ্ট্রার ইমরান হাবীব, পেকুয়া উপজেলা সাব রেজিষ্ট্রার মোক্তার আহম্মদ, দলিল লেখক কুরবান আলী উপজেলার চেয়ারম্যানের পক্ষ হয়ে আমাকে আটকিয়ে রাখা বাসায় আসে (আজিজ কলনিস্থ তাদের টর্চারসেলে) তাদের সৃজিত একটি দলিলে জোরপূর্বক স্বাক্ষর আদায় করে নেয়। পরে জানতে পারি তারা একটি জাল দলিল তৈরী করে আমার ৪০ শতক জায়গা লিপিবদ্ধ করে।
১৯ জুলাই আমার ঘরে গিয়ে আমার অবুঝ সন্তানকেও জিম্মি করে ফেলে এবং ঘরবাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর করে আলমিরা ভেঙ্গে চেকবহি নিয়ে নেয় উক্ত বহি হইতে ক্রমান্নয়ে তিনটি চেক পেকুয়া শাখা, ফাস্ট সিকিউরিটি ব্যাংক যার নং-৬০৪১৮৩১, ৬০৪১৮৩২ ও ৬০৪১৮৩৩ এ জোরপূর্বক স্বাক্ষর নেয়। প্রায় অবচেতন অবস্থায় আমাকেও নিয়ে তারা ব্যাংকে যায়। ব্যাংক থেকে তিনটি চেকের বিপরীতে ৮,০০,০০০/- (আট লক্ষ) টাকা উত্তোলন করে নেয়। ক্যাশে থাকা জিনু নামের অফিসারের কাছ থেকে ক্যাডার আজমগীর ওরপে আজিম্যা টাকা গুলো গ্রহণ করে। যার প্রমাণ ব্যাংকের সিসিটিভি ফুটেজে পাওয়া যাবে।
২০ জুলাই গুরুত্বর অসুস্থ অবস্থায় চৌমুহনী রাস্তায় রেখে চলে যায় আজিম্যা বাহিনী। এলাকার লোকজন আমাকে উদ্ধার করে পেকুয়া জেনারেল হাসপাতাল, চকরিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করে। এখনো ডাক্তার আবু মোহাম্মদ শামসুদ্দিনের অধীনে এখনো চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছি।

তিনি বলেন, উক্ত সন্ত্রাসী জাহাঙ্গীর আলম ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড আজিম্যার বাহিনী ৫ জানুয়ারী ২০২১ইং অন্যায় ও অবৈধভাবে জোরপূর্বক আমার ২৬ শতক জমিতে দখলে নেয়। সন্ত্রাসী বাহিনী আরো বলে আমাকে ও আমার পরিবারকে জায়গার আশপাশে দেখলে জানে মেরে ফেলে লাশ গুম করবে বলে হুমকি প্রদান করে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়েছে, ২১ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী জাহাঙ্গীর চেয়ারম্যানের ৪ সহোদর বাহিনীর কাছে অসহায় হয়ে পড়েছে পেকুয়াবাসী। জাহাঙ্গীরের অপকর্মের বিবরণ দিয়ে কোরআনে হাফেজ নজরুল ইসলাম বলেন, ২০১৭ সালের ১৩ আগষ্ট র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের সদস্যদের হাতে ৩টি কাটা বন্দুক, ১০ রাউন্ড গুলি, বিপুল পরিমাণ ইয়াবা এবং ইয়াবা বিক্রির ১৭ লক্ষ টাকাসহ জাহাঙ্গীর ও তার তিন সহোদর আলমগীর, কাইয়ুম ও আজমগীরকে আটক হয়। এ মামলায় তাদের একুশ বছরের সাজা হয়েছে। গত বছর অক্টোবর মাসে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা হাজী মকছুদ আহমদ এই বাহিনীর বিরুদ্ধে সংবাদ সস্মেলন করায় তাকে দোকান লুটের মামলা দিয়ে হয়রানী করা হয়। ২০১৫ সালের ৭ এপ্রিল সাইফুল ইসলাম বাবুল নামের এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে জাহাঙ্গীর আলম ও তার সহোদররা মিলে পেকুয়া বাজারের সামনে থেকে তাকে অপহরণ করে ৭০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ বিষয়ে থানায় মামলা রয়েছে। ২০১৪ সালের ৩ মে পেকুয়া চৌমুহনীস্থ বিডিআর জাহাঙ্গীর মার্কেটের সামনে স্থানীয় জাহেদুল ইসলাম চৌধুরীকে দুই লক্ষ টাকা চাঁদার দাবিতে লোহার রড, হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। জাহেদের কাছে থাকা ৪২ হাজার টাকা চিনিয়ে নেয়।
২০১২ সালে চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালী থানার পলোগ্রাউন্ড বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে বকুল আক্তার নামে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছ জাহাঙ্গীর আলম ও তার বন্ধু শহিদুল আলমের বিরুদ্ধে। চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ এ মামলাটি করা হয়। এরকম অসংখ্য মামলা রয়েছে জাহাঙ্গীর আলম ও তার সন্ত্রাসী সহোদরদের বিরুদ্ধে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কোরআনে হাফেজ নজরুল ইসলামে স্ত্রী জাহেদা বেগম,ভাই আনোয়ার হোসাইন ও শ্যালক মিজানুর রহমান ও তার অবুঝ শিশু প্রমুখ।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com