মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:১৭ পূর্বাহ্ন

আপোষের কথা বলে প্রবাসীকে হত্যার চেষ্টা

১০ ই জানুয়ারী  ২০২১  আসামীরা আপোষের   কথা বলে আমাকে ডেকে নিয়ে চন্দ্রনগর আবাসিকে জেনে ব্লু বিল্ডিং – এ প্রথম তলা  অফিসে ঢোকার  মুহুর্তে অভিযুক্ত  আসামীরা  শাররিক নির্যাতন করে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে।

আজ  বৃহস্পতিবার দুপুরের নগরীর জামালখানস্থ একটি হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন সৌদি প্রবাসী মো: নুরুল আলম ।

তিনি অভিযোগ করেন,২০১৫ সালে ডিসেম্বরে  প্রবাস হইতে আসার পর হাবিবুল্লাহ বাহার ও এক্সেস ফটিক প্লাজার এমডি শফির সাথে পরিচয় হয় । বাহার ও শফি আমাকে এক্সেস ফটিক প্লাজা দোকান  নেওয়ার প্রস্তাব করিলে আমি প্রথম তলায় ২৪০ ও ২৪১ নং দোকানন বরাদ্দ নিই । তখন আমি রশিদ মূল্যে ৫,০০০,০০ / – পাচঁ লক্ষ টাকা প্রদান করি । যা আমাকে দলিল করে দেন । হাবিবুল্লাহ বাহার প্রথম পক্ষ হয়ে রশিদ মূল্যে বিভিন্ন পদে ২৭,৫০,০০০ / – সাতাইশ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা আমার থেকে নিয়েছেন । তারা  প্রতারনা করে আমার অজান্তে ২৪০ নং দোকান ভূমি মালিক মহিউদ্দীন এর নিকট বন্টননামায় হস্তান্তর করে । ১ নং আসামীর ভাই পুলিশ কর্মকর্তা হওয়ায় প্রশাসনিকভাবে প্রভাব কাটিয়ে আসামীরা আমিসহ বিভিন্ন জনের সাথে প্রতারণা করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। ১০ ই জানুয়ারী  ২০২১  আসামীরা আপোষের   কথা বলে আমাকে ডেকে নিয়ে চন্দ্রনগর আবাসিকে জেনে ব্লু বিল্ডিং – এ প্রথম তলা  অফিসে ঢোকার  মুহুর্তে অভিযুক্ত  আসামীরা আমাকে শাররিক নির্যাতন করে হত্যার চেষ্টা করে।এই সময় আমি কোন রকমে প্রাণে বেঁচে বায়েজিদ থানায় পৌছায় এবং ওসিকে মৌখিকভাবে অভিযোগ  করিলে সাথে পুলিশ ফোর্স প্রেরণ করে । উপস্থিত তদন্ত অফিসারকে  সিসি টিভির ভিডিও ফুটেজ জব্দ করার অনুরোধ করি । ঘটনা তদন্ত করার পর অফিসার সত্য ঘটনা জানার পরও মামলা নিতে অপরাগতা প্রকাশ করেন।  হাবিবুল্লাহ বাহারের ছোট ভাই উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকতা হওয়ায় সবাই তাদের কে সমীহ করে ।

তিনি  অভিযোগ করেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীকে অভিযোগ  ও  পুলিশ কমিশনার কাছে যাওয়ায়  খবর পেয়ে হাবিবুল্লাহ বাহার  আমাকে ক্রস ফায়ার দেওয়ার এবং মামলা মোকদ্দমা দিয়ে জেলা হাজতের ভাত খাওয়াবে বলে বিভিন্ন রকমের ভয়ভীতি দেখিয়ে যাচ্ছে।  

তিনি আরো অভিযোগ করেন,জমির মালিকের নামে জায়গার খতিয়ান । এখনও অভিযুক্ত  ডেভেলাপারকে রেজিষ্ট্রি দেয়নি। এমনকি কোন প্রকার চুক্তি নাই । এ ব্যাপারে ভূমির মালিক ফটিকছড়িতে একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন । আরেক ভূমি মালিক জানায় তার সাড়ে ছয় গন্ডা জায়গা অরকিট প্রাজার নাম দিয়ে তার সাথে বয়না করে ডেভেলাপার এক্সিস লিভিং লিঃ তা আবার বাতিল করে ।কিন্তু  উক্ত ভূমিতে এখন ফটিক প্লাজা নামে মার্কেট হয় , যা আইনত   অবৈধ  । বিভিন্ন প্রবাসীদেরকে দালাল এর মাধ্যেমে দোকান দিবে বলে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে হাবিবুল্লাহ বাহার গং ।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ও পুলিশ কমিশনার কাছ থেকে টাকা নিতে বলে।   জীবন রক্ষা এবং টাকা ফেরত পেতে  প্রধানমন্ত্রী , স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশ কমিশনার,এসপিও স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। অভিযুক্তদের হাত থেকে প্রবাসীরদের রক্ষায় প্রশাসন দ্রুত পদক্ষেপ নিয়ে এগিয়ে আসবেন।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com