বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৮:১১ অপরাহ্ন

শিরোনাম
৫০০ কর্মজীবী ও নির্মাণ শ্রমিকের মাঝে আ জ ম নাছিরের ত্রাণ সহায়তা ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২৩৭ জনের মৃত্যু লকডাউনকালীন অসহায় শিশু ও গরীব দুঃস্থদের মাঝে চট্রগ্রাম নাগরিক ঐক্যর পক্ষ থেকে রান্না করা খাবার বিতরণ চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী, নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছে এশিয়ান স্পেশালাইজড হসপিটাল আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ আল্লামা মুফতি ইদ্রিছ রেজভীর ইন্তেকাল জাপা নেতা তপন চক্রবর্ত্তীর মৃত্যুতে উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির শোক প্রকাশ চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১৩১০ জনের, মৃত্যু ১৮ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে অ্যামনেস্টির বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অনিয়ম করলে ক্ষমা নেই, কঠোর শাস্তি: প্রধানমন্ত্রী

টরোন্টোতে আমাদের এইসব দিনরাত্রি

টরন্টো থেকে মারুফ শাহ চৌধুরী : টরোন্টোতে আমাদের এইসব দিনরাত্রি। গরিবের মহাদেশ এশিয়া করোনা একটু সদয় এশিয়ার প্রতি কিন্তু ইউরোপ আমেরিকায় আগ্রাসন ও প্রতিরোধ সমানতালে চলছে। হারি জিতি সমান সমান। খুব কড়া লকডাউন। হঠাৎ বাংলাদেশ থেকে এসে গৃহবন্দি হয়ে পড়েছি। তার উপর শীতের প্রকোপ। এখানে যে ধরনের নামাজ আদায় করেছি আমাদের ধর্মের প্রবর্তক তিনি হয়তো সে চিন্তা করে নাই যে তাঁর উম্মতকে আগে আসলে আগে ভিত্তিতে অথবা টিকেট কেটে নামাজ পড়তে হবে। অনলাইনে সব লেখাপড়া। আমার নাতি সাফিয়া সাত বছরে। অনলাইনে আরবি পড়া এবং তার ক্লাসের সমানতালে চলছে। অনলাইনে ক্লাস চলার সময় আমি ওর সামনে যেতে পারি না বলে নানু আমার মিটিং চলছে। আর আব্বা আমার জামাই বাবাজি রয়েলব্যাংক অফকানাডার ম্যানেজার। সেও এক বছর অনলাইন অফিস করতেছে। তার ছোট ছোট দুই সন্তান আমার নাতি জায়ান মাত্র দেড় বছর অত্যন্ত চঞ্চল প্রকৃতির সাথে তার বড় বোন সাফিয়া কাবুলিওয়ালা গল্পের মিনির মত এক দন্ড কতানা কইয়া থাকতে পারে না। বাচ্চাদের কোলাহলের জন্য তার পিতা সময় দরজা বন্ধ করে রাখে অথবা বলে আমার মিটিং চলছে। সোফিয়া অনলাইনে ক্লাস করার সময় তার পিতার ওই কতটুকু কাজে লাগায় যেন নানা আমার মিটিং চলছে। আমরাও হুকুমের দাস তখন চুপ করে থাকি হাজার হোক নাতনির অর্ডার মানতেই হবে।তার ছোট ভাইয়ের পেন্টি যখন তার মা বদলায় এবং সন্তান পালনের এই সমস্ত কষ্ট দেখে সে তার মাকে বলে মা আমি সন্তান নেব না। আমার হঠাৎ হাসি পেয়ে গেল। সেই কাবুলিওয়ালার মিনির শ্বশুরবাড়ির গল্পের মত। মিনি কাবুলিওয়ালা রহমত কে জিজ্ঞেস করি তো কাবুলিওয়ালা তুমি শ্বশুর বাড়ি যাবে। কাবুলিওয়ালা চোখ রাঙিয়ে বলতো আমি শশুরকে মারিবে। সে খুব ভালো ইংরেজি বলে কিন্তু ঘরে চলে মাতৃভাষা চর্চা। আমরা যখন বাংলা ভাষায় কথা বলি কোন নতুন বাংলা শব্দ আসলে সে জিজ্ঞেস করে এটার অর্থ কি অর্থ বুঝাতে বুঝাতে আমি হয়রান। আজকের সন্ধ্যায় তার জননী আমার মেয়ে নুসরাত আমাকে সে বলল আব্বা আপনার নাতিন কে একটু আমাদের নবী এবং ফেরেশতাদের নামগুলো শিখান। এমনি আমার রাত্রে ঘুম কম হয় মাগরিবের নামাজের পর চোখ আমার ঘুম ঘুম এমন সময়  নাতি নাতনি এসে উপস্থিত।আমি বললাম আমাদের নবীর নাম হযরত মুহাম্মদ সাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লিম। মোহাম্মদ নাম বলার সাথে সাথে সোফিয়া দুচোখে চুমু লাগালো বললো নানু তুমিও চোখে চুমু দাও এটা রেস্পেক্ট। আমার হুজুর বলেছে আমি ওর সাথে সাথে চোখে চুমু দিলাম।তারপর আমি বললাম আমাদের নবীর আব্বার নাম আব্দুল্লাহ। আমার মুখে আব্দুল্লাহ নাম শুনে বললো নানু আব্দুল্লাহ আমার ক্লাসমেট। মনে মনে খুব হাসলাম হঠাৎ করে সৈয়দ মুজতবা আলীর দেশ-বিদেশের কথা মনে পড়ে গেল সেই আব্দুর রহমানের অল্প শোকে কাতর অধিক শোকে পাথর। এইভাবে চলছে আমাদের দিনরাত্রি।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com