বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ০৮:০৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম
৫০০ কর্মজীবী ও নির্মাণ শ্রমিকের মাঝে আ জ ম নাছিরের ত্রাণ সহায়তা ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ২৩৭ জনের মৃত্যু লকডাউনকালীন অসহায় শিশু ও গরীব দুঃস্থদের মাঝে চট্রগ্রাম নাগরিক ঐক্যর পক্ষ থেকে রান্না করা খাবার বিতরণ চট্টগ্রামে করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী, নিরবচ্ছিন্ন সেবা দিয়ে যাচ্ছে এশিয়ান স্পেশালাইজড হসপিটাল আগামী রবি ও বুধবার ব্যাংক বন্ধ আল্লামা মুফতি ইদ্রিছ রেজভীর ইন্তেকাল জাপা নেতা তপন চক্রবর্ত্তীর মৃত্যুতে উত্তর জেলা জাতীয় পার্টির শোক প্রকাশ চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১৩১০ জনের, মৃত্যু ১৮ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে অ্যামনেস্টির বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অনিয়ম করলে ক্ষমা নেই, কঠোর শাস্তি: প্রধানমন্ত্রী

শিবকে ‘কনডম পরিয়ে’ বিতর্কে অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ

কলকাতার অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের পুরনো একটি টুইট নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে। যেখানে, তার অ্যাকাউন্ট থেকে শিবলিঙ্গকে কনডম পরানোর ছবি পোস্ট করা হয়েছিল।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালে করা অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের ওই টুইটে দেখা যাচ্ছে একটি শিবলিঙ্গের ছবি, যাতে কনডম পরাচ্ছেন এক মহিলা।

অনেকে বলছেন, ওই ছবি থেকে স্পষ্ট এইডসের বিরুদ্ধে সচেতনতা অভিযানের অংশ হিসেবেই সেটি পোস্ট করা হয়েছিল।

একইসঙ্গে অনেকে আবার দেবদেবীদের নিয়ে এই ধরনের ‘চটুলতা ও অশ্লীলতা’ মেনে নিতে পারছেন না।

ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের সাবেক রাজ্যপাল ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ তথাগত রায় গত শনিবার কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে লেখেন, ওই টিভি অভিনেত্রীর করা টুইটে একজন একনিষ্ঠ শিবভক্ত হিসেবে আমার ধর্মীয় বিশ্বাস আহত হয়েছে।

তথাগত রায় জানান, ২৫ বছর আগে তিনি পায়ে হেঁটে কৈলাস-মানস সরোবর পাড়ি দিয়ে শিবের পূজা দিতেও গিয়েছিলেন। ভারতীয় দন্ডবিধির ২৯৫এ ধারায় ওই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানান।

এছাড়া রবিবার ভারতের গুয়াহাটির পল্টনবাজার থানায় এবং ব্যাঙ্গালোরের আর একটি পুলিশ থানাতেও সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে একই অভিযোগে এফআইআর আনা হয়েছে। ওই দুটি রাজ্যে, যথাক্রমে আসাম ও কর্নাটকে, বিজেপি সরকার ক্ষমতায় রয়েছে।

এদিকে টুইটারে সায়নী ঘোষ ইতিমধ্যে আত্মপক্ষ সমর্থন করে লিখেছেন, আমার নিজের ধর্মের অনুভূতিকে আঘাত করার কোনও অভিপ্রায় কখনওই আমার ছিল না।

তিনি আরও দাবি করেন, বছরকয়েক আগে ওই পোস্টটি করা হয়েছিল তার অগোচরে। এবং তিনি জানতে পারামাত্র সেটির নিন্দা করে তা মুছে দিয়েছিলেন এবং মানুষকেও সেটা জানিয়েছিলেন। বিবিসি

অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ বিতর্কে পুরুলিয়ার সভা থেকে বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা তথাগত রায়কে একহাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বললেন, “ক্ষমতা থাকলে সায়নীর (ঘোষ) গায়ে হাত দিয়ে দেখাক বিজেপি। বয়স হলেও ভীমরতি যায়নি। নাতনির বয়সি মেয়েকে প্রতিদিন হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন৷”

মঙ্গলবার পুরুলিয়ার জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানান, ”সংস্কৃতিকে, টালিগঞ্জকে এবং বাংলাকে আক্রমণ করা যাবে না। বাক স্বাধীনতা আছে, মানুষ কথা বলতেই পারেন”। তিনি বলেন, সায়নীর মতো ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির একটা বাচ্চা মেয়েকে ধমক-চমক দিচ্ছে। আজকে সকালেও শুনেছি, যে ওঁকে নাকি বিজেপি থেকে ধমকানো হচ্ছে। এত বড় স্পর্ধা? বিজেপি তুমি দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, বিহারে ধমকাও। বাংলার কাউকে ধমকানোর সাহস পাও কোথা থেকে? বাংলায় ধমকালে মুখ লিউকোপ্লাস্টার দিয়ে বন্ধ করে দেবে মানুষ। এত সোজা নয়। ক্ষমতা থাকে তো সংস্কৃতিপ্রেমী মানুষদের গায়ে হাত দিয়ে দেখাও। বয়স হলেও ভীমরতি যায় না। নাতনির বয়সি মেয়েকে প্রতিদিন হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। তাঁর স্বাধীনভাবে ব্যক্তিগত মতামত প্রকাশের অধিকার নিশ্চয়ই আছে।”

শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন, সোমবার তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারও সায়নী ঘোষকে বিজেপির আক্রমণের কড়া নিন্দা করেন। টুইটে কাকলি লেখেন, ”জঘন্য !! লজ্জাজনক, বিজেপি যুব মোর্চার নির্দেশে কোনও নির্দিষ্ট বিভাগের সদস্যরা একজন বাঙালি অভিনেত্রীকে ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা করি। আমরা সায়নী ঘোষের সঙ্গে রয়েছি।”

ঘটনার সূত্রপাত একটি বাংলা চ্যানেলে অতিথি বক্তা সায়নীর বক্তব্য নিয়ে। পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বলতে গিয়ে সায়নী বলেছিলেন, ‘‘যে ভাবে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানটিকে রণধ্বনিতে পরিণত করা হয়েছে, তা অত্যন্ত ভুল। উপরন্তু, এটি বাঙালি সংস্কৃতির মধ্যেও পড়ে না। ঈশ্বরের নাম ভালবেসে বলা উচিত।’’ তার পরেই এক নেটাগরিক টুইট করে আক্রমণ করেন সায়নীকে। তাঁর দাবি, অভিনেত্রী দেশভাগের কথা ভুলে গিয়েছেন। সেখান থেকেই শুরু টুইট-যুদ্ধ। তার পর প্রকাশ্যে আসে ২০১৫ সালে তাঁর করা একটি টুইট। সেই টুইট শিবলিঙ্গে কন্ডোম পরাতে দেখা যাচ্ছে এক মহিলাকে। ওই ছবিতে তাঁর ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত লেগেছে বলে ভারতীয় দণ্ডবিধির ২৯৫এ ধারায় সায়নীর বিরুদ্ধে কলকাতার রবীন্দ্র সরোবর থানায় অভিযোগ জানান বিজেপি নেতা তথাগত রায়।

বিতর্কিত টুইট নিয়ে অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের পাশেই দাঁড়ালেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তথাগতবাবুকে বার্তা দিয়ে ‘উপেক্ষা’-র পথে হাঁটার পরামর্শ দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। রবিবার সকালে তিনি বলেন, ‘ফেসবুকে যে কেউ কমেন্ট করতেই পারে। তার সঙ্গে বাগযুদ্ধে জড়ানোর দরকার নেই।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com