শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ১১:০১ পূর্বাহ্ন

কবরস্থানের জায়গায় স্থাপনা নির্মাণে নিষেধ করায় পুত্রবধু কর্তৃক শশুর-শাশুড়ি কে মারধর

নাঙ্গলকোটে দুই পুত্রবধু কর্তৃক শশুর আবদুস সোবহান ও শাশুড়ি মাহমুদা বেগমকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মক্রবপুর ইউনিয়নের মক্রবপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামে। গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় এলাকাবাসীর উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ ঘটনার তীব্র নিন্দ্রা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে আবদুস সোবহানের পক্ষে লিখিত বক্তব্য রাখেন, তার শ্যালক রফিকুল ইসলাম।
লিখিত বক্তব্যে জানা যায়, উপজেলার মক্রবপুর দক্ষিণ পাড়া গ্রামের আমার আবদুস সোবহান (৭০), তার বড় দুই সন্তান দেলোয়ার হোসেন ও আনোয়ার হোসেন লিটনকে সম্পত্তি বিক্রি করে প্রবাসে প্রেরণ করেন। গত ১৫ বছর যাবত তার ছেলে ও ছেলের বউরা আবদুস সোবহান ও তার স্ত্রী মাহমুদা বেগমকে ভরণ-পোষন প্রদান করে না এবং খোঁজ-খবর নেয় না। তাদেরকে খেয়ে-না খেয়ে কষ্টের মধ্যে বেঁচে থাকতে হচ্ছে। আবদুস সোবহানের ছেলে দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী ফাতেমা বেগম ও অপর ছেলে আনোয়ার হোসেন লিটনের স্ত্রী বিলকিস বেগম পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদেরকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দসহ বিভিন্ন সময় তাদের উপর অত্যাচার-নির্যাতন করে থাকে। আবদুস সোবহান, তার স্ত্রী, পুত্রবধুসহ তাদের সন্তানেরা একই বাড়িতে বসবাস করে। সবার জন্য টয়লেট ও টিউবওয়েল রয়েছে। তারা দীর্ঘদিন থেকে টয়লেট ও টিউবওয়েল ব্যবহার করে আসছে। আবদুস সোবহান ও তার স্ত্রীর মৃত্যুর পরে তাদেরকে কবর দেয়ার জন্য আবদুস সোবহান আধা শতক সম্পত্তি রেখে দেন।
ওই সম্পত্তিতে আবদুস সোবহানের ছেলে আনোয়ার হোসেন লিটনের স্ত্রী বিলকিছ বেগম জোরপূর্বক রান্নাঘর দেয়। পরে অপর ছেলে দেলোয়ার হেসেনের স্ত্রী ফাতেমা বেগমসহ অপর ছেলের স্ত্রী বিলকিস বেগম আবদুস সোবহানকে না জানিয়ে অবশিষ্ট সম্পত্তিতে গত ১৩ জানুয়ারী টিউবওয়েল ও টয়লেট দেয়ার চেষ্টা করে। আবদুস সোবহান এতে প্রতিবাদ করলে দুই পুত্রবধু ফাতেমা বেগম ও বিলকিস বেগম আবদুস সোবহান ও তার স্ত্রী মাহমুদা বেগম গালমন্দ করে এবং মারধর করে। এঘটনায় আবদুস সোবহান দুই পুত্রবধুর বিরুদ্ধে থাকায় অভিযোগ দায়ের করেন।
থানা পুলিমের উপ-পরিদর্শক (এস আই) সোহেল মিয়াকে ঘটনাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়। তিনি সরেজমিনে তদন্ত করে উভয়পক্ষকে নিয়ে থানায় সালিশ বৈঠকে বসার জন্য দিন-তারিখ দেন। কিন্তু আবদুস সোবহানের দুই পুত্রবধু থানা পুলিশকে অমান্য করে আবদুস সোবহান ও তার শ্যালক রফিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপ-প্রচার চালায়। যাহা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।
দুই পুত্রবধু শ^শুর আবদুস সোবহান ও শ^াশুড়ি মাহমুদা বেগমকে মারধরও সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে তাদেরকে মারধরের মিথ্যা নাটক সাজায়। এখানে পুত্রবধুদের মারধরের কোন ঘটনা ঘটে নাই। দুই পুত্রবধু আবদুস সোবহান ও তার স্ত্রীর কবরস্থানের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলে নেয়ার জন্য বিভিন্নভাবে পায়তারা করে আসছে। আবদুস সোবহান তাকে ও তার স্ত্রীকে মারধর এবং তার শ্যালকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অপ-প্রচারের তীব্র প্রতিবাদ জানান এবং পুত্রবধুদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করেন।
আবদুস সোবহানের শ্যালক রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার ভাগিনা বউরা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপ-প্রচার চালিয়ে আমার মান সম্মান ক্ষুন্ন করছে। আমি তাদের শাস্তি দাবি করছি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন. মক্রবপুর গ্রাম কমিটির সভাপতি হাজী আলী নোয়াব, রফিকুল ইসলাম, রুহুল আমীন, মৌলভী আবদুস সাত্তার, রফিকুল ইসলাম, সুরুজ মিয়া, আবদুল মালেক, মোস্তফা, শাহজাহান, নুরুল ইসলাম, সোহেল হাছান প্রমুখ।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com