সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
মধ্যরাতে প্রবাসীদের ভীড়:পদ্মা সেতু উচ্ছ্বাসের রঙ ছড়িয়েছে যুক্তরাজ্যেও মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যারা অবদান রেখেছেন তাদের স্মরণীয় করে রাখার উদ্যোগ নিয়েছে চসিক আওয়ামী লীগ নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে চায় : প্রধানমন্ত্রী বিদেশী রাষ্ট্রের সহযোগিতা পেলে পাচারকৃত অর্থ উদ্ধার করা সম্ভব : দুদক মহাপরিচালক রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐকমত্য প্রতিষ্ঠায় ইসি চেষ্টা চালিয়ে যাবে : সিইসি পদ্মা সেতু নির্মাণের সব কৃতিত্ব বাংলাদেশের জনগণের : প্রধানমন্ত্রী বিএনপি জনগণের বিষয় নিয়ে আন্দোলন করে না : তথ্যমন্ত্রী আওয়ামী লীগ জনকল্যাণের রাজনীতি করে : ওবায়দুল কাদের চট্টগ্রাম ই-শপ বিজনেস কমিউনিটি উদ্বোধন কৃতী সম্পাদক অধ্যাপক মরহুম আফজল মতিন সিদ্দিকী

বৈশ্বিক মহামারী পরবর্তী উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে কার্যকর বাজেট – মনোয়ারা হাকিম

বৈশ্বিক মহামারী পরবর্তী এই কঠিন সময়ে প্রস্তাবিত বাজেট অত্যন্ত সাহসী এবং সময়োপযোগী। চিটাগাং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি এর প্রেসিডেন্ট মনোয়ারা হাকিম আলী ০৯ জুন ২০২২ তারিখে জাতীয় সংসদে মাননীয় অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম. মুস্তফা কামাল কর্তৃক ঘোষিত দেশের ৫১তম প্রস্তাবিত বাজেট উপস্থাপন-কে স্বাগত জানিয়ে ঘোষিত বাজেটের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এই কথা বলেন। পর পর দুই ধাপে মহামারীর কারনে দেশের সর্বস্তরের মানুষ যখন অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে দিগ-বিদিগ জ্ঞান-শূন্য হয়ে পড়েছিল ঠিক সেই মুহুর্তে বর্তমান সরকারের ঘোষিত বাজেট দেশের মানুষকে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখালো। নানান সীমাবদ্ধতার মাঝে এই ধরনের সময়োপযোগী বাজেট প্রণয়ন করায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম. মুস্তফা কামাল-কে অভিনন্দন জানান তিনি।

মহামারী পরবর্তী পরিস্থিতিতে শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি মহামারীতে ভেঙ্গে পরা শিক্ষা-খাতকে পুনরুজ্জ্বীবিত করতে সাহায্য করবে। স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্ধ বৃদ্ধি, চলমান মহামারী মোকাবেলার কার্যক্রমকে আরো ত্বরান্বিত করবে। কৃষি খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধির ফলে মহামারী পরবর্তী এই দুঃসময়ে দেশের খাদ্য-নিরাপত্তা ঝুকি কমবে। কিন্তু পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগ এবং খাদ্য খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করলে বৈশ্বিক বাজার দরের অস্থিতিশীলতার সাথে তাল রেখে চলা সম্ভব হতো। এবং জ্বালানী ও বিদ্যুৎ এবং শিল্প ও অর্থনৈতিক খাতে বরাদ্ধ বৃদ্ধি করলে ব্যবসায় বাণিজ্যের উন্নয়ন তথা দেশের জনগনের উন্নয়নের পথ ত্বরানিত হত। এছাড়া পরিবহন ও যোগাযোগ এবং জনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধির ফলে সাধারণ জনগনের জীবন-মানের উন্নয়ন ঘটবে এবং মানুষের জীবন থেকে অনিশ্চয়তা লাঘব হবে। স্টার্টআপ উদ্যোক্তাদের টার্নওভার করের হার কমানো এবং আয়রকত রিটার্ন দাখিল বাদে বাকি সব রিপোর্টিং থেকে অব্যহতি, এবং তরুণদের নতুন ধারনা বিকাশে সহায়তা করার জন্য এফবিসিসিআই প্রস্তাবিত ইনোভেশন সেন্টার প্রতিষ্ঠায় সহায়তা প্রদান করার প্রস্তাবের ফলে তরুণ উদ্যোক্তাদের সামনে এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে। এছাড়া “ই-বাণিজ্য করবো, নিজের ব্যবসা গড়বো” র্শীর্ষক প্রকল্পের অধীনে নতুন উদ্যোক্তাকে ই-কমার্স বিষয়ে প্রশিক্ষন প্রদান করার উদ্যোগ বাজেটের একটি ইতিবাচক দিক। তাছাড়া পর্যটন খাতকে সমৃদ্ধ করার জন্য আন্তর্জাতিক মানের আবাসন ও বিনোদন সুবিধা নিয়ে কক্সবাজার জেলার সবরাং ট্যুরিজম পার্ক, নাফ ট্যুরিজম পার্ক এবং সোনাদিয়ায় ইকো ট্যুরিজম পার্ক স্থাপন সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে। যা পর্যটন খাতকে আরো সামনে এগিয়ে নিতে ভূমিক রাখবে। বিড়ি-সিগারেট ও ধোয়াবিহীন তামাকজাত পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি দেশের সাধারণ জনগণকে ধুমপান থেকে বিরত থাকতে উৎসাহিত করবে। এছাড়া গাড়ীসহ বিলাস বহুল পণ্যের উপর শুল্ক বৃদ্ধি করায়, এই সমস্ত পণ্য ক্রয়কে নিরুৎসাহিত করবে। দেশীয় তৈরী ল্যাপটপ, ডেস্কটপ ও অন্যান্য অন্যান্য আইসিটি পণ্য থেকে ৫ শতাংশ শুল্ক প্রত্যাহারের ফলে দেশীয় তৈরী এই সমস্ত পণ্যের দাম কমবে এবং দেশের তথ্য প্রযুক্তি খাত ও প্রতিষ্ঠানসমূহ আরো অগ্রসর হবে। আয়কর, শুল্ক ও মুশক বিভাগে ই-পেমেন্ট অটোমেটেড চালান প্রবর্তন একটি যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত।

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জন্য ৪ হাজার ২৯০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব নারীদের জন্য প্রস্তাবিত বিষয় সমূহ বাস্তবায়নে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। এই বরাদ্দকৃত টাকা সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারলে দেশের নারী ও শিশুদের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন ও স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ভুমিকা রাখবে। এছাড়া এসএমই খাতে নারী উদ্যোক্তাদের বার্ষিক টার্নওভার ৭০ লক্ষ টাকা আয়কে করমুক্ত বিদ্যমান রাখা বাজেটের ইতিবাচক দিক। যা নারীদেরকে সামনে এগিয়ে যেতে সহায়তা করবে।

বাজেটে আদিবাসী ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সম্প্রদায়ের জীবন-মান উন্নয়ন এবং ক্ষুদ্র শিল্পে তাদের চলমান অংশগ্রহন ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে আলাদাভাবে প্রকল্প গ্রহনের প্রস্তাব করছি। যার ফলে তাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি কৃষ্টি ও ঐহিত্য ধরে রাখতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com