মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
বরখাস্ত পুলিশ পরিদর্শক সোহেল রানার অ্যাকাউন্টে সাড়ে ২৮ কোটি টাকা পণ্য ও সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের মতবিনিময় টুঙ্গিপাড়া থেকে ২ ঘণ্টায় গণভবনে প্রধানমন্ত্রী বন্দরে এলো নতুন ২টি গ্যান্ট্রি ক্রেন, পূর্ণতা পেল এনসিটি কর্ণফুলী বঙ্গবন্ধু টানেল: সম্ভাবনার নতুন দুয়ার মধ্যরাতে প্রবাসীদের ভীড়:পদ্মা সেতু উচ্ছ্বাসের রঙ ছড়িয়েছে যুক্তরাজ্যেও মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যারা অবদান রেখেছেন তাদের স্মরণীয় করে রাখার উদ্যোগ নিয়েছে চসিক আওয়ামী লীগ নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে চায় : প্রধানমন্ত্রী বিদেশী রাষ্ট্রের সহযোগিতা পেলে পাচারকৃত অর্থ উদ্ধার করা সম্ভব : দুদক মহাপরিচালক রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ঐকমত্য প্রতিষ্ঠায় ইসি চেষ্টা চালিয়ে যাবে : সিইসি

চট্টগ্রামের ১৫ উপজেলার সাড়ে ৮লক্ষ শিশুকে ভিটামিন ‘ এ ‘ প্লাস খাওয়ানো হবে

চট্টগ্রাম জেলার ১৫ উপজেলার ২শত ইউনিয়নের ৬শত ওয়ার্ডের ১৫টি স্থায়ী কেন্দ্র ,১৫টি ভ্রাম্যমাণ কেন্দ্র, ৪হাজার ৮শত  অস্থায়ী কেন্দ্রে ৬ মাস থেকে ১১ মাস প্রতিটি শিশুকে ১ টি করে নীল রঙের ভিটামিন ‘ এ ‘ ক্যাপসুল  ও ১২-৫৯ মাস বয়সী প্রতিটি শিশুকে ১ টি করে লাল রঙের ভিটামিন ‘ এ ‘ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে । ৪দিন ব্যাপি ১২ই জুন রবিবার শুরু হবে।সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্সন্ত বিরতিহীনভাবে কার্যক্রম চলবে।

আজ  বিকালে নগরীর আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের সিভিলর্সাজনের কার্যালয়ের  মিলনায়তনে ভিটামিন ‘ এ ‘ প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম সিভিলর্সাজন ডা:মোহাম্মদ ইলিয়াস এই তথ্য জানান।

  তিনি বলেন,শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে ও ভিটামিন ‘ এ ‘ প্লাস অভাবজনিত অন্ধত  প্রতিরোধ এবং শিশুর স্বাভাবিক বৃদ্ধি রোগ প্রতিরোধ  ক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জাতীয় ভিটামিন ‘ এ ‘ প্লাস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হচ্ছে । যে কোন টিকাদান কেন্দ্রে টিকা দেওয়া যাবে। ভ্রমনে থাকাকালীন সময়েও রেল স্টেশন , বাস টার্মিনাল ,  ফেরীঘাটও লঞ্চঘাটে   ক্যাপসুল খাওয়াতে পারবেন । ০৬ – ৫৯ মাস বয়সী সকল  শিশুকে ৪ মাস অন্তর ভিটামিন ‘ এ ‘ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে।

তিনি বলেন,স্বাস্থ্য  পরির্দশক ৩৯জন ,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ১৩৬জন ,স্বাস্থ্য সহকারী ৫৪০জন,পঃপঃ সহকারী ৬৮৬জন,পঃপঃ পরিদর্শক ২৫৩জন, স্বেচ্ছাসেবক ৯৬৬০জন,স্যানিটারী ইন্সপেক্টর ১৫জন, সিইচসিপি ৫০৯ জন,স্যাকমো ৮২জন।

গণমাধ্যমের প্রশংসা করে সিভিলর্সাজন বলেন,বিএম কন্টেইনার ডিপোতে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে  আমি চিকিৎসকদের অনুরোধ করেছিলাম  কাজে যোগ দিতে,কিন্তু কাউকে তো ফোন করি নাই। গণমাধ্যম তৎক্ষনিক প্রচার করায় ডাক্তার নার্স কাজে যোগদেন করেন।রোগীদের ডেসিং করে দ্রুত চিকিৎসা সেবা দেওয়া সম্ভব হয়েছে।   

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি  সিভিল সার্জন ডা. ওয়াজেদ চৌধুরী অভি, ডা. নুরুল হায়দার, ডা. প্রমিকি কর্মকার ও জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক সুজন বড়ুয়া ।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com