বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ১২:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম
চুয়েটে আজ উদ্বোধন হচ্ছে দেশের প্রথম আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর আজ অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ-এর জন্মশতবার্ষিকী বিএনপি’র আন্দোলনের হুমকি নিয়ে আমাদের মাথা ব্যথা নেই: ওবায়দুল কাদের চামড়ার মূল্য নির্ধারণ সব কারাগার ও থানায় বায়োমেট্রিক পদ্ধতি চালু করতে হাইকোর্টের রায় মক্কা নগরীতে হজ্জ মেডিকেল সেন্টার পরিদর্শন করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সময়োপযোগী পরিবর্তনকে ধারণ করে পোশাক মালিকরা সমৃদ্ধ দেশ গঠনে অবদান রাখবে : স্পিকার অধিক ফসল উৎপাদন করার ও বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হবার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর জনগণের ভোটাধিকার রক্ষায় কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালে আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক সম্মেলন ৭ জুলাই

মামলায় জড়াতে ও সংবাদ সম্মেলন ঠেকাতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাঙচুর


মামলায় জড়াতে ও  সংবাদ সম্মেলন ঠেকাতে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ভাঙচুর করেছেন আবুল কাসেম চেয়ারম্যান নিজেই।  

আজ শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন কাশিয়াইশ ইউনিয়নের বুধপুরা গ্রামের কালু মেম্বার বাড়ীর চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী  মোহাম্মদ কাইছ। 

তিনি অভিযোগ করেন, সার্কেল এসপি ও থানার ওসি দুইজনে আবুল কাশেম চেয়ারম্যানের ইচ্ছা অনুযায়ী আমার লোকদের  মামলার আসামি ও ঘরছাড়া করছেন।

তিনি অভিযোগ করেন,গত ২২ ই মার্চ  পবিত্র রমজান মাসে অত্র ইউনিয়নে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান আবুল কাশেমের ছোট ভাই এবিএম সোহেল চৌধুরী  রাত আনুমানিক ৯ টা ৪৫ মিনিট এর সময় দুষ্কৃতকারীদের ছুরির আঘাতে মর্মান্তিক ভাবে নিহত হয়েছে।  । তখনই উক্ত হত্যাকাণ্ড বিষয়ে আমি কিছুই জানতাম না। উক্ত হত্যাকান্ডের বিষয়টি আমার সম্পূর্ণ অজানা ছিল এবং আমি তখন শহরের বাসায় ছিলাম । তার প্রমান আমি ঐসময় আমার শহরের বাসায় থেকে পুলিশ কর্মকর্তাদের ফোনে কথা বলার  তথ্য প্রমান রয়েছে । কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় , এ হত্যার ঘটনায় আমাকে প্রধান আসামীসহ আমার নির্বাচনে যারা আমার সাথে ছিল মোট ৮ জন সহ আরো অজ্ঞাতানামা ১০ / ১২ জনকে আসামী করে আমার প্রতিদ্বন্দ্বী কাসেম চেয়ারম্যান পটিয়া থানায় নং -০৪( ৪ ) ২২ তারিখ  ২৩ / ০৪ / ২০২২ ইং ধারা ১৪৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩০২ পেনাল কোড । অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে , হত্যাকাণ্ডের সাথে আমি বা ৪ নং আসামী আমার ছোট ভাই সুমন ও ৬ নং আসামী জসিমুল আনোয়ার খান , ৭ নং মুক্তিযোদ্ধার সন্তান গাজী আজগর আলী কে কাল্পনিক আসামী করা হয়েছে । যে ঘটনার সময় আমরা শহরে অবস্থান ছিলাম সেখানে আমাকে ১ নং আসামী করে আমার চুরির আঘাতে নিহত হয়েছে মর্মে আমার প্রতিপক্ষ চেয়ারম্যান একটি মিথ্যা বানোয়াট কাল্পনিক এজাহার দায়ের করে । এই আধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তির যুগে বাস্তবতা নিরক্ষণ না করে পটিয়া থানার বর্তমান ওসি এবং পটিয়া সার্কেল অফিসার মিলে আমাদের বিরুদ্ধে এই হত্যাকাণ্ডের মামলাটি গ্রহণ করেন ।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান  কাসেম আমাদের বিরুদ্ধে তার ভাই হত্যা মামলা করে শান্ত হয়নি , ঘটনার পর পর আমার বাড়িতে চেয়ারম্যান কাশেমের নেতৃত্বে একদল স্বশস্ত্র যুবক ব্যাপক তান্ডব চালায় । সন্ত্রাসীরা আমার বাড়ি নির্মাণের জন্য আনা ৪ টন লোহার রড , দুইশত  বস্তা সিমেন্ট , পাঁচহাজার  ইট , দুই হাজার কার্টন এর অধিক টাইলস্ ট্রাক বোঝাই করে লুঠকরে নিয়ে যায় । যার মূল্য আনুমানিক ১০ হতে ১২ লক্ষ টাকা হবে । তখন বাড়িতে অবস্থানরত আমার বৃদ্ধ মা – বাবার উপর হামলা চালায় এবং পাশাপাশি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে আমাকে হত্যা করবে মর্মে হুমকি দিতে থাকে । শুধু তাই নয় , চেয়ারম্যান কাশেমের নেতৃত্বে আমার বাড়িসহ আমার সমর্থকদের আরো ১০ / ১২ টি বাড়ীতে অনুরূপ তান্ডবলীলা চালিয়ে লুটপাট করে এবং সমর্থক জাহাঙ্গীরের মুদির দোকান “ নিমতলী শাহ্ স্টোর ” হতে আনুমানিক ৫/৬ লক্ষ টাকার মালামাল ও নগদ ৫০,০০০ টাকা এবং এরফানের ফার্নিচার দোকান “ নূরে মদিনা টিম্বার এন্ড ফার্নিসার মাট ” হতে আনুমানিক ৭/৮ লক্ষ টাকার ফার্নিসার সমাগ্রী , বীর মুক্তিযোদ্ধা গাজী আবুল কাশেম এর স’মিল হতে গাছের রদ্দা নিয়ে যায় এবং স’মিলে আগুন ধরিয়ে দেয় । যা নিরপক্ষভাবে তদন্ত করলে প্রমান পাওয়া যাবে ।
 তিনি বলেন, কাসেম চেয়ারম্যান সারা জীবন বিএনপি রাজনীতি  করতো , পটিয়ার একজন প্রতিষ্ঠিত গার্মেন্টস ব্যাবসায়ী তার আত্বীয় , এই সুবাদে সে ব্যাপক অপকর্ম করলেও কেউ তার বিরুদ্ধে কথা বলতে পারেনা । তার বিরুদ্ধে এলাকায় সনাতনী সম্প্রদায়ের জায়গা দখল , মসজিদের জায়গাদখল , শ্মশান দখল , জহুর হকারস মার্কেটের মুখে জায়গা দখল করে চেয়ারম্যান হোটেল বানানো , পুরাতন বাকলিয়ায় থানার পার্শ্বে জনৈক সোহেলের জায়গা অন্যায় ভাবে দখলে রাখা সহ বিস্তর অভিযোগ রয়েছে । গত নির্বাচনে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে নৌকা মার্কার টিকেট নিয়ে নির্বাচন করেছে , এতে সে ব্যাপক ভোট কারচুপি করে মাত্র ৯৯ ভোটে তাকে জয়ী দেখায় । এনিয়ে নির্বাচনী ট্রইব্যুনালে তার জালিয়াতির বিজয়ের বিরুদ্ধে মামলা চলছে । পাটিয়াতে এই কাসেম চেয়ারম্যানের অপকর্মে বর্তমানে সহায়তা দিচ্ছে থানার ওসি এবং সার্কেল এসপি ।   

তিনি পুলিশ সুপারের প্রশংসা করে বলেন, অত্যান্ত মানবিক অফিসার পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক। তার প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ । ঘটনার পর থেকে কাসেম চেয়ারম্যানের লালিত পালিত গুন্ডাদের অত্যাচার নির্যাতনে কাশিয়াইশের হাজারো মানুষ যখন ঘরবাড়ী ছাড়া , ঈদের সময়ে বুধপুরা বাজারের দোকান পাঠ বন্ধ থাকা , পবিত্র ঈদুল ফিতরের সময় লোকজন যখন বাড়ী ঘরে যেতে পারছেন না তখন ন্যায়পরায়ন পুলিশ সুপারের সরাসরি হস্তক্ষেপে এজাহার নামীয় আসামী ছাড়া এলাকার শত শত মানুষকে ঈদ উদযাপনের ব্যবস্থা করেদেন শ্রদ্ধেয় মানবিক পুলিশ সুপার । 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম ,যুবলীগ নেতা আজগর আলী ,আব্দুল জলিল, মোহাম্মদ আলী,  মিসেস কুলসুমসহ প্রমুখ। 

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com