বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
মমতার আয়োজনে ৩দিন ব্যাপী নারী উদ্যোক্তা মেলা রোহিঙ্গাদের যেতেই হবে : ভোয়া’র সাথে সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী মালয়েশিয়ার সঙ্গে দ্রুত এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ : অর্থমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাত্রনেতা থেকে আজ বিশ্বনেতা : তথ্যমন্ত্রী বিএনপি লাঠির সঙ্গে পতাকা বেধে রাস্তায় নামলে জবাব দেওয়া হবে : ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপিত ঋনখেলাপি ব্যবসায়ীসহ স্ত্রীর দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা বঙ্গবন্ধু কন্যা আছেন বলেই নিরাপদে ঘুমায় বাংলাদেশ-ইমরান আহাম্মেদ ইমু ক্যাম্পেইন চলাকালীন সময়ে ভ্যাকসিন গ্রহণ করুন কভিড থেকে নিরাপদ থাকুন নগরীর বিভিন্ন এলাকায় শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ : ৮ ব্যক্তিকে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা

স্বাধীনতা পুরস্কার ও একুশে পদকপ্রাপ্ত গুণীজন নাগরিক সংবর্ধনা কমিটি চট্টগ্রামের মতবিনিময়

স্বাধীনতা পুরস্কার ও একুশে পদকপ্রাপ্ত গুণীজন নাগরিক সংবর্ধনা কমিটি চট্টগ্রামের মতবিনিময় সভা গত ৭ মে শনিবার বিকাল ৫টায় নগরের চন্দনপুরাস্থ এনএসি ভবনে সংগঠনের আহবায়ক লায়ন প্রকৌশলী জাবেদ আবছার চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সমন্বয়কারী স ম জিয়াউর রহমানের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সদস্য সচিব অধ্যক্ষ ড. শেখ এ রাজ্জাক রাজু, যুগ্ম আহবায়ক এম এ সবুর, মো. কামাল উদ্দিন। এতে সম্মানিত অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক ড. সেকান্দর চৌধুরী, পালি ও সংস্কৃত বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. জিনবোধি ভিক্ষু।
সভায় বক্তারা বলেন, প্রাচ্যের রানী চট্টগ্রাম হচ্ছে গুণীজনের চারণভূমি। হাজারো গুণীজনের জন্মস্থান বীর প্রসবিণী চট্টগ্রাম। চট্টগ্রামের বহু গুণীজন দেশ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতি অর্জন করে এবং পুরস্কার ছিনিয়ে এনে চট্টলবাসীকে গৌরবান্বিত করেছেন। বক্তারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা প্রায় সব সময় চট্টগ্রামকে প্রাধান্য দিয়ে আসছেন। ভারতের জাতির পিতা মহর্ষী মহাত্মা গান্ধী তাই চট্টগ্রামকে উপলব্ধি করে বলেছেন, সর্বাগ্রে চট্টগ্রাম। চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানে বাংলাদেশের উন্নয়ন এবং চট্টগ্রামের সম্মান মানেই বাংলাদেশের সম্মান। বক্তারা আরো বলেন, বায়ান্নের ভাষা আন্দোলনের একুশের প্রথম কবিতা চট্টগ্রাম থেকেই রচিত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় স্বাধীনতা আন্দোলনে ছয় দফা, পরবর্তীতে এক দফা এবং স্বাধীনতার ঘোষণা চট্টগ্রাম থেকেই উচ্চারিত হয়েছিল।
সভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো বক্তব্য রাখেন কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা এস এম লেয়াকত হোসেন, হাবিবুর রহমান হাবিব, মো. জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মো. মাইনুল ইসলাম, উত্তম চক্রবর্তী কাজল, দুলাল কান্তি বড়ুয়া, লায়ন মোহাম্মদ জানে আলম, মুসলিম আলী জনি, রতন বড়ুয়া, মো. সেলিম উদ্দিন, মো. হারুন-অর-রশীদ, ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ এমরান, জান্নাতুল ফেরদৌস বৃষ্টি, রাশেদা বিনতে ইসলাম, নুসরাত জাহান, ফয়জুন্নেছা আকতার সুক্তা, বিন্দু দাশ, ফাতেমা আকতার ডলি, শিউলি আকতার প্রমুখ।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com