বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৪৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম
আরএসআরএমের এমডির দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেশের ক্ষতি করতে বিএনপি-জামায়াত বিদেশে ৮টি লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ দিয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সুনির্দিষ্ট কোনো রূপরেখা নেই : ওবায়দুল কাদের নৈরাশ্যবাদীদের ভ্রান্ত ধারণাকে অমূলক প্রমাণ করে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ নিয়ে টিআই প্রণীত দুর্নীতি রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট, উদ্দেশ্য প্রণোদিত : তথ্যমন্ত্রী বাশঁখালী পৌরসভা মেয়রের অসংলগ্ন কথার্বাতা চট্টগ্রামে নুয়েসলার বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড চান চুনতির বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ঋণ খেলাপীর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ফটিকছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভারতীয় লাইফসাপোর্ট এ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সহিংসতায় অধিকাংশই ছিল বহিরাগত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যে সহিংস ঘটনা ঘটেছিল, সেখানে হেফাজতে ইসলামের নাম শোনা গেলেও অধিকাংশই বহিরাগত ছিল বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

তিনি বলেন, হেফাজতে ইসলাম কোনো রাজনৈতিক সংগঠন নয়।
যারা ফায়দা লোটার জন্য আপাতত ইসলামের ভেতর থেকে আপনাদেরকে ব্যবহার করেছে, করার চেষ্টা করছে, তা বুঝতে আপনাদের কিছুটা ভুল ছিল। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যে ঘটনা ঘটেছে সেখানে অধিকাংশই বহিরাগত ছিল। আপনারা যেহেতু রাজনৈতিক সংগঠন নয়, সেখানে রাজনৈতিক ফায়দা নিতে অন্যরা প্রবেশ করেছে। আপনারা অবশ্যই এগুলো লক্ষ্য রাখবেন।

শনিবার (২৭ নভেম্বর) রাজধানীর প্রেসক্লাবে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি একথা বলেন।

এ সময় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা শুরু থেকে আপনাদের জানাতে চাই, যিনি আমাদের দেশ পরিচালনা করছেন তিনি একজন পাক্কা মুসলমান। তিনি সকালে কোরআন তেলাওয়াত করেন। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করেন। তিনি এ পর্যন্ত কুরআন-সুন্নাহর বাইরে কোনো ধরনের কাজ করেননি এবং করবেন না। এদেশে কেউ যদি এখন কোরআন-সুন্নাহর অবমাননা করে, সরকার কিন্তু তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিচ্ছে।

তিনি বলেন, আমরা কারো বিশ্বাসের প্রতি আঘাত হানতে পারি না। অন্য ধর্মের প্রতি আঘাত করতে পারি না। এমনকি আমাদের ধর্মে বলা হয়েছে অন্য ধর্মের বিশ্বাসের প্রতি আঘাত করা যাবে না। আপনারা দেখেছেন প্রধানমন্ত্রী আল্লামা শফী সাহেবকে অনেক শ্রদ্ধা করতেন এবং তার সঙ্গে আলোচনা করে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী সবসময় আপনাদের যুক্তি এবং কুরআন-হাদিসের কথা সানন্দে গ্রহণ করেন। কুরআন-হাদিসের সাংঘর্ষিক এমন কোন আইন কখনো পাস করেননি এবং করবেন না।

অনুষ্ঠানে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নেতা-কর্মীসহ একাধিক ধর্মপ্রাণ মুসল্লি উপস্থিত ছিলেন।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com