বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:২২ অপরাহ্ন

শিরোনাম
আরএসআরএমের এমডির দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা দেশের ক্ষতি করতে বিএনপি-জামায়াত বিদেশে ৮টি লবিস্ট ফার্ম নিয়োগ দিয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনীতি ও নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সুনির্দিষ্ট কোনো রূপরেখা নেই : ওবায়দুল কাদের নৈরাশ্যবাদীদের ভ্রান্ত ধারণাকে অমূলক প্রমাণ করে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ নিয়ে টিআই প্রণীত দুর্নীতি রিপোর্ট পক্ষপাতদুষ্ট, উদ্দেশ্য প্রণোদিত : তথ্যমন্ত্রী বাশঁখালী পৌরসভা মেয়রের অসংলগ্ন কথার্বাতা চট্টগ্রামে নুয়েসলার বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত নির্বাচনে প্রচার প্রচারণায় লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড চান চুনতির বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫ঋণ খেলাপীর দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ফটিকছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভারতীয় লাইফসাপোর্ট এ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর

মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা বারডেমে

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও বারডেম জেনারেল হাসপাতালের মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা সেবাদান সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক নবায়ন করা হয়েছে।

সমঝোতা স্মারক পাঁচ বছর পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।
এর আগে ২০১৮ সালে তিন বছরের জন্য এ দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছিল।

একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা সর্বোচ্চ ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা এ হাসপাতাল থেকে পাবেন। এর মধ্যে ওষুধ, বেড, পথ্য এবং নার্সিং সেবাও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষে অতিরিক্ত সচিব রঞ্জিত কুমার দাস এবং বারডেম হাসপাতালের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালক অধ্যাপক এম কে আই কাইয়ুম চৌধুরী সমঝোতা স্মারক সই করেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সমঝোতা স্মারক সই অনুষ্ঠানে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ছাড়াও মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় এবং বারডেম হাসপাতালের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবাদানের লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ২০১৬ সালের নীতিমালায় সংশোধন করে সরকারি হাট-বাজারের ইজারা থেকে আয়ের ৪ শতাংশ অর্থ ব্যয় নীতিমালা ২০২১ জারি করা হয়েছে। এতে বলা হয়, মন্ত্রণালয় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সরকারি হাসপাতালসহ, মেডিক্যাল কলেজ ও ২২টি বিশেষায়িত হাসপাতালে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিনামূল্যে ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত চিকিৎসাসেবা দিতে পারবে। বারডেম জেনারেল হাসপাতাল এদের মধ্যে অন্যতম।

এছাড়া জটিল কোনো রোগে আক্রান্ত হয়ে নির্ধারিত এসব হাসপাতালের বাইরে দেশ-বিদেশে চিকিৎসার প্রয়োজন পড়লে সরকার অতিরিক্ত ১ লাখ টাকা অনুদান দেবে। তবে চিকিৎসা অনুদান একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা জীবনে একবারের বেশি পাবেন না। আর অনুদান একটি বাছাই কমিটির সুপারিশের মাধ্যমে মন্ত্রণালয় মঞ্জুরি দেবে।

যে ২২ বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা পাবেন মুক্তিযোদ্ধারা-

ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোর), জাতীয় কিডনি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় বক্ষব্যাধি ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস হাসপাতাল, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল, জাতীয় হৃদরোগ ফাউন্ডেশন এবং বারডেম জেনারেল হাসপাতাল।

খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতাল, গোপালগঞ্জের শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব চক্ষু হাসপাতাল ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান, চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, সিলেটের এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, বরিশালের শের-ই- বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com