শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৯ অপরাহ্ন

পাঠানটুলি বংশালপাড়ায় নালার উপর দোকান নির্মাণ: চসিক পরিচ্ছন্ন বিভাগ দেখেও যেন দেখে না

চট্টগ্রাম নগরীর দুঃখ জলাবদ্ধতা। সামান্য বৃষ্টিপাত মানেই নগরজুড়ে হাঁটুজল। রাস্তাঘাট বন্ধ, অন্তহীন দুর্ভোগ। নগরীর অধিকাংশ এলাকার বাসাবাড়ির নিচতলা প্রতিবছরই নিয়ম করে পানিতে প্লাবিত হবেই। গত ২৫ বছর ধরেই চট্টগ্রাম নগরবাসীর এই দুঃখ আর  যাচ্ছে না। নগরীর এই জলাবদ্ধতা নিরসনে ২০১৭ সালে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ৫ হাজার ৬১৬ কোটি টাকার একটি মেগা প্রকল্প গ্রহন করে সরকার। চলতি বছরেই এই প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত প্রকল্পের মাত্র ৬০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। এর পরও নগরবাসী এখন পর্যন্ত  প্রকল্পের দৃশ্যমান কোন সুফল পাচ্ছে না। সর্বশেষ গত ৬ জুন দিনভরের বৃষ্টিতে পুরো চট্টগ্রাম নগরীজুড়ে থই থই জল ।

 নগরীর জলবদ্ধতায়  অনেকাংশে প্রভাবশালীরা জড়িত । এর ধারাবাহিকতায় নগরীর আগ্রাবাদ পাঠানটুলি বংশাল পাড়ার বয়েজ ক্লাবের গলির মুখে নালার উপর অবৈধভাবে দুটি দোকান নির্মাণ  করেন এলাকার কতিপয় দুই প্রভাবশালী ব্যক্তি  ।নালার পুরো অংশ দখলে নিয়ে দোকান নির্মাণ করে মোটা অংকের টাকা নিয়ে দোকান ভাড়া দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে । চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তারা দেখেও যেন দেখে না।এই ব্যাপারে চসিক পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তারা মুশেদ এর সাথে ফোনে যোগাযোগের বার বার চেষ্টা করে ব্যর্থ হই।তিনি ফোন ধরেন নাই।যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তাদের সাথে চেষ্টা করে ব্যর্থ হই।

স্থানীয় একব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার র্শতে বলেন,এই ভাবে নালার উপর দোকান নির্মাণ করায় পানি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে ,ফলে রোড়ে পানি জমে যাচ্ছে। এলাকার স্কুলের কুমলমতি ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণের চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে।তাই দ্রুত এই দুই দোকান অপসারণে মেয়রের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

স্থানীয় ওর্য়াড কাউন্সিলর মো: জাবেদ বলেন,আমি ছুটিতে আছি।দুই /একদিনের মধ্যে দেশে ফিরে আসব। ।অবৈধভাবে গড়ে উঠা দোকানগুলি উচ্ছেদের ব্যবস্থা নেব।নির্মাণের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com