শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৯:২১ অপরাহ্ন

১২ই রবিউল আউয়াল বিশ্বের সর্ববৃহৎ জশনে জুলুছে হবে চট্টগ্রামে

গতকাল ১২ অক্টোবর মঙ্গলবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব’র এস. রহমান হলে আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র ব্যবস্থাপনায় ৪৯তম জশনে জুলুছে ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত বক্তব্যে আনজুমান ট্রাস্ট’র সেক্রেটারি জেনারেল আলহাজ¦ মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বার আউলিয়ার পূণ্যভুমি চট্টগ্রাম থেকে আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র ব্যবস্থাপনায় ‘জশ্নে জুলুছ’ বের হবে। দরবারে আলিয়া কাদেরিয়ার সাজ্জাদানশীন পীর, রাহ্নুমায়ে শরীয়ত ও তরিকত, মোর্শেদে বরহক, আউলাদে রাসুল, হযরতুল আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ সাবির শাহ (মু.জি.আ.)’র সদারতে বা নেতৃত্বে এ জুলুছে ৫০ লক্ষাধিক মানুষের সমাগম হবে বলে আশা করা হয়। আগামী ১২ই রবিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী, ২০ অক্টোবর বুধবার সকাল ৯টায় নগরীর ষোলশহরস্থ আলমগীর খানকা-এ কাদেরিয়া সৈয়্যদিয়া তৈয়্যবিয়া থেকে বের হয়ে বিবিরহাট, মুরাদপুর, পাঁচলাইশ থানা মোড়, কাতালগঞ্জ, অলিখাঁ মসজিদ, চকবাজার, প্যারেড ময়দানের পূর্বপাশ, সিরাজুদ্দৌল্লাহ রোড, দিদার মার্কেট, আন্দরকিল্লা মোড়, কদম মোবারক, চেরাগী পাহাড়, প্রেস কøাব, জামালখান মোড় হয়ে কাজির দেউড়ি মোড়, আলমাস হয়ে ওয়াসার মোড়, জিইসি মোড়, ২নম্বর গেইট, মুরাদপুর, বিবিরহাটসহ বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জামেয়া আহমদিযা সুন্নিয়া আলিয়া সম্মুখস্থ জুলুছ ময়দানে ঈদে মিলাদুন্নবী মাহফিলের মাধ্যমে শেষ হবে। এছাড়াও দেশের রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুর কাদেরীয়া তৈয়্যবিয়া আলিয়া থেকেও আরেকটি জশ্নে জুলুছেরও সদারত করবেন আল্লামা পীর সাবির শাহ (মু.জি.আ)। লিখিত বক্তব্যে মহামারি করোনা কালীন বর্তমান অবস্থায় জশ্নে জুলুছের অনুমতি দেওয়ায় প্রশাসনের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়। তদুপরি বিগত ১৫ ফেব্রæয়ারি, ২০২১ তারিখে প্রকাশিত বাংলাদেশ গেজেটে মহামান্য রাষ্ট্রপতির আদেশ অনুবলে প্রকাশিত প্রজ্ঞাপনে ১২ই রবিউল আউয়াল দিবসকে দেশের প্রধান জাতীয় দিবস হিসেবে সম্মানসূচক জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.) উদযাপনে ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে সরকারের প্রতি মোবারকবাদ জানান হয় সম্মেলনে। সরকারের এ ঘোষণার মাধ্যমে আল্লাহর রহমতে দেশের উন্নতি-অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি আরও ত্বরান্বিত হবে বলে উল্লেখ করে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (দ.)কে কেন্দ্র করে জাতীয়ভাবে জশ্নে জুলুছ আয়োজনসহ আরও ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণের উপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়। আসন্ন জশ্নে জুলুছকে সফল করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বাংলাদেশে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী( দ) উপলক্ষে আয়োজিত বেসরকারি পর্যায়ের সর্ববৃহৎ অনুষ্ঠানটি ব্যবস্থা করে আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট। গাউসে জামান সৈয়্যদ মুহাম্মদ তৈয়্যব শাহ (র.)’র লিখিত নির্দেশে দিবসটিকে উদযাপনের জন্য আনজুমান ট্রাস্ট ১৯৭৪ সনে চট্টগ্রাম থেকে চালু করেছে ‘জশনে জুলুছে ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (দ.)। যা বর্তমানে সমগ্র দেশে বহুল জনপ্রিয়তা পেয়ে অধিকাংশ সুন্নি-সূফী ঘরানার প্রতিষ্ঠান এবং দরবার কর্তৃকও অনুসৃত হয়ে আসছে। আনজুমান ট্রাস্ট আয়োজিত চট্টগ্রামের ঐ দিনের ‘জশনে জুলুস’টিই বর্তমানে এখানকার ইতিহাস-ঐতিহ্যের নিদর্শন হিসেবে গণ্য হচ্ছে উল্লেখ করে ১২ই রবিউল আউয়াল এ জুলুছে অংশ নিয়ে নবীপ্রেমে সিক্ত হতে চট্টগ্রামের মানুষ সারাবছর অপেক্ষায় থাকেন বলে মন্তব্য করেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে গাউসিয়া কমিটির যুগ্ম-মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার ক্রমবর্ধমান জনসমাগম ও ভীড় এড়াতে এবছর চট্টগ্রামের বাইরের গাউসিয়া কমিটি’র জেলা শাখা গুলোকে নিজ-নিজ জেলা সদরে ১২ রবিউল আউয়াল তারিখে ‘জশ্নে জুলুছ’ আয়োজন করার কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে চট্টগ্রামের জুলুছে অংশগ্রহণে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে বলে জানান তিনি। এ পবিত্র আয়োজন সুশৃঙ্খল ও নিরাপত্তার জন্য গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ এবং আনজুমান সিকিউরিটি ফোর্সের অন্তত পাঁচ হাজারের মতো স্বেচ্ছাসেবক জুলুছে দায়িত্ব পালন ছাড়াও চট্টগ্রামের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীসহ সরকারি-বেসরকারি প্রশাসনের সার্বিক সহায়তাও সাথে থাকবে বলে প্রত্যাশা করা হয়। এই বিশাল জশনে জুলুসে আগতদের সেবায় জেলা প্রশাসন, ওয়াসা, বিদ্যুৎ, সিটি কর্পোরেশন, সিডিএ, পরিবহন সংস্থাসহ সংশ্লিষ্ট সব কর্তৃপক্ষের সহায়তা কামনা করে সংবাদ সম্মেলনে জুলুছে গমনের সড়কপথে যেন কোন বিপদ না ঘটে সেজন্য নালা-নর্দমার উপরিভাগ উম্মুক্ত যেন না থাকে সে বিষয়ে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণও করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, আনজুমান-এ রহমানিয়া আহমদিযা সুন্নিয়া ট্রাস্ট’র অ্যাডিশনাল জেনারেল সেক্রেটারি আলহাজ্ব সামশুদ্দিন, প্রেস এন্ড পাবলিকেশন্স সেক্রেটারি অধ্যাপক কাজী মুহাম্মদ সামশুর রহমান, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার পরিচালান পর্ষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ অধ্যাপক দিদারুল ইসলাম, অধ্যক্ষ আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, গাউসিয়া কমিটি বাংলাদেশ’র কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ, যুগ্ম-মহাসচিব এড. মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, সাংগঠনিক সচিব আলহাজ¦ মাহবুব এলাহী সিকদার, উত্তর জেলা গাউসিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক আহসান হাবীব চৌধুরী হাসান, মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল্লাহ, সাবেক সহ-সাধারণ আলহাজ¦ সাবের আহমদ, জশ্নে জুলুছ মিডিয়া সেল সদস্য আ.ন.ম তৈয়্যব আলী, মুহাম্মদ এরশাদ খতিবী, সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী রানা, মাওলানা আব্দুল মালেক, আলহাজ¦ মুহাম্মদ হোসেন খোকন, লায়ন আবু নাসের রনি, মুহাম্মদ দস্তগীর আলম প্রমূখ।       

আপনি পাঠিয়েছেন

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com