বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১০:১১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
শুভ জন্মদিন মানবিক বিশ্বনেত্রী শেখ হাসিনা নিবন্ধন পেল ইলেকশন মোনিটরিং ফোরাম গণতন্ত্র, অগ্রগতি, বিশ্ব নারী জাগরণের প্রতীক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা : তথ্যমন্ত্রী ৭৫’র পরবর্তী বাংলাদেশে সৎ, যোগ্য ও সাহসী নেতার নাম শেখ হাসিনা : ওবায়দুল কাদের শেখ হাসিনা শুধু দেশেই নন, বহির্বিশ্বেও অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক : রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন আগামীকাল বন্দরের শূন্যপদে করোনা ইউনিটের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পূনবহালের দাবী দুই ব্যবসায়ীকে ৫মাসের কারাদন্ড ১ অক্টোবর থেকে ৫ দিন ব্যাপী দুর্গোৎসব উদযাপিত হবে বিদেশী পর্যটককে আকৃষ্ট করার মত পরিবেশ উপহার দিতে পারলেই দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে: ড. ইদ্রিস আলী

রেলওয়ের মুকুটহীন সম্রাট শাহ আলম: কেজি স্কুল এবং মাদ্রাসার নামে রেলের জায়গা দখল করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান


শাহজাদী আফিফা
একাধিক গুণের অধিকারী একজন শাহ আলম। তিনি একাধারে ঠিকাদার, ব্যবসায়ী নেতা, সমাজসেবক, স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ।

সবকিছুই ছাপিয়ে রেলের জমি লিজ নেয়াই তাঁর প্রধান পেশা। ‘রেলে যা চান তাই পান শাহ আলম’। কখনো নিজের নামে কখনো স্ত্রী ইয়াসমিন আলমের নামে রেলের জায়গা ও দোকানপাট কৌশলে ভাড়া ও টেন্ডারের নামে হাতিয়ে নেন। এরপর রেলের জায়গায় স্থায়ীভাবে গেড়ে বসেন। রেলের জমি দখলে রাখতে প্রয়োজনে আদালতে মামলা ঠুকে দেন। এক সময় যুবদলের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকা শাহ আলমের নিজ বাড়ি কুমিল্লায়।

কোন বিবরণ উপলভ্য নেই।

ঠিকাদার ও ক্যাসিনো জিকে শামীমকে নিয়ে সারাদেশ আলোচিত হলেও আলোচনায় নেই চট্টগ্রামে জিকে শামীম রেলওয়ের অঘোষিত মুকুটহীন সম্রাট শাহ আলম প্রকাশ (রেল শাহ আলম)। চট্টগ্রাম নগরীর আইস ফ্যাক্টরী রোডে রেলের জমি এক বছরের জন্য ভাড়া নিয়ে ১০০ কোটি টাকার বিশাল বাণিজ্যিক ভবন গড়ে তোলার পাশাপাশি নগরীর মাদারবাড়ীতে রেলওয়ের স্টেশন কলোনি এলাকার একটি পরিত্যক্ত ভবন আবদুস ছালাম নামে রেলওয়ের এক কর্মচারীকে (ওয়েম্যান) বাসা হিসেবে বরাদ্দ দেয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু শাহ আলমের ক্যাডারেরা ওয়েম্যান আবদুস ছালামকে ওই বাসায় উঠতে দেয়নি। পরিত্যক্ত ওই ভবনটি দখলে নেয়ার জন্য শাহ আলম সেখানে গড়ে তুলেছেন ‘স্বপ্নীল গ্রামার স্কুল’ নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

কোন বিবরণ উপলভ্য নেই।

অথচ রেলের কর্মকর্তা- কর্মচারী ছাড়া বাইরের কাউকে রেলওয়ে কোয়ার্টার বরাদ্দ দেয়ার বিধান না থাকলেও উপর মহল ম্যানেজ করে শাহ আলম তার স্ত্রী ইয়াসমিন আলমের নামে বরাদ্দ নিয়েছেন রেলের সরকারি কোয়ার্টার। স্বপ্নিল গ্রামার স্কুল এবং তাওহিদুল উম্মাহ মাদ্রাসা নাম দিয়ে রেলওয়ের প্রায় ১একর জায়গা দখল করে শিক্ষা ব্যবসা করেছেন। স্বপ্নিল গ্রামার স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল ইসহাক সকালের চট্টগ্রামকে বলেন এই স্কুলের প্রিন্সিপাল রেলওয়ে ঠিকাদার শাহ আলম । এখানে প্রায় ৩০০ ছাত্র-ছাত্রী আছে। ভর্তি ফি নেওয়া হয় ২২০০ টাকা । প্রতি মাসের বেতন নেওয়া হয় ৩০০ থেকে ৫০০। প্রিন্সিপাল শাহ আলমের শিক্ষাগত যোগ্যতা সম্বন্ধে জানতে চাইলে ভাইস প্রিন্সিপাল ইসহাক বলেন, প্রিন্সিপাল শাহ আলম বাংলাদেশ রেলওয়ে স্টেশন কলোনি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।
রেলওয়ে স্টেশন কলোনী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আজাদ বলেন, শাহ আলম এই স্কুলে কোন এক সময় খন্ডকালীন কেরানি ছিলেন ।
তাওহীদুল উম্মাহ মাদ্রাসা তত্ত্বাবধায়ক মাওলানা ওমর ফারুক বলেন পাশাপাশি আমাদের দুইটা ক্যাম্পাস রয়েছে। দুইটা ক্যাম্পাসে প্রতিষ্ঠাতা রেলওয়ে ঠিকাদার শাহ আলম। এখানে প্রায় আড়াইশো ছাত্র রয়েছে ।আমরা ভর্তি ফি নিই (১১০০) এক হাজার একশত টাকা । মাসিক বেতন নিই ৫০০ টাকা ।
রেলের জায়গায় কোনো ধরনের বেসরকারী অবকাঠামো নির্মাণের সুযোগ না থাকলেও রেলওয়ের অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজশে রেলের বিভিন্ন জায়গায় গড়ে তুলেছেন স্থায়ী অবকাঠামো।
এ ব্যাপারে শাহ আলমের বক্তব্য জানতে তার মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। শাহ আলমের দখলদারিত্বের ব্যাপারে রেলের চীফ এস্টেট অফিসারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,রেলের অনেক জায়গা লিজ দেওয়া হয়েছে,কে কোথায় নিয়েছে তা কাগজপত্র দেখে বলতে হবে ।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com