শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৫৪ অপরাহ্ন

তরুণ উদ্যোক্তাদের সফল হওয়ার কার্যকারী উপায়

উদ্যোক্তা সেই যে রিস্ক বা ঝুঁকি নিতে জানে সফল হওয়ার লক্ষ্যে। তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে সফল হওয়ার ৯টি কার্যকারী উপায় নিয়ে আমাদের আকজের এই পোস্ট। আশা করি এই উপায় গুলো একজন সফল উদ্যোক্তা হতে সাহায্য করবে।

১। নিজেকে চ্যালেন্জ দিন আপনি পারবেন- রিচার্ড ব্র্যানসন এর মতে সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণা হচ্ছে নিজেকে সবসময় চ্যালেঞ্জিং রাখা।

২। নিজের কাজের প্রতি বিশ্বাস রাখুন। অনেক সময় আমাদের মধ্যে এমন কিছু মানুষ আমরা খুজে নাই যারা নিজের কাজকে ছোট করে দেখে। নিজেই যদি নিজেকে ছোট মনে করেন তাহলে মানুষ আরো সুযোগ পাবে কথা বলার আপনার কাজ নিয়ে। তাই যেই কাজ করুন না কেন নিজের প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে।

৩। ঝুঁকি নিতে হবে। উদ্যোক্তা হতে হলে আপনাকে অবশ্যই ঝুঁকি নিতে হবে। তবে তরুন উদ্যোক্তা হিসাবে আপনাকে আপনার মূলধন এর প্রতি খেয়াল রাখতে হবে। যেন রিক্স নিয়ে সব যেন হারিয়ে না ফেলেন।

 

৪।তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে লক্ষ স্থির রাখুন

আজকে এই ব্যবসা, কালকে আরেকটা নিয়ে চিন্তা করার আগে লক্ষ স্থির রাখতে হবে। টাম্বলারের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও, ডেভিড কারপ, এর মতে। একজন উদ্যোক্তা কে সফল হওয়ার আগ সময় প্রজন্ত স্থির থাকতে হবে আপানার লক্ষের দিকে। আপনার দৃষ্টি সর্বদা পরিষ্কার রাখুন।

৫। ভয়কে দূর করতে হবে। স্বাভাবিক ভাবেই একজন তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে কিছু ভয় কাজ করবে। তবে তারাই সফল হবে যারা এই ভয়কে দূর করতে পারবে। তাই তরুণ উদ্যোক্তা হতে হলে ভয় কে জয় করতেই হবে।

৬। সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ। এটি একটি অন্যতম কার্যকারী উপায় নিজেক মেলে ধরার। এই দুনিয়ায় খুব কম মানুষই আছে যারা সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেন নিয়েছে। আর সফল তারাই যারা সঠিক সময়ে সঠিক কাজ করে ভয়কে দূর করে সফল হতে পেরেছে।

৭। অতি লোভ ও অতি ভয়।

লোভ এমন একটা জিনিস যা আমাদের সবার মধ্যে কম বেশী আছে। তবে অতি লোভে আবার তাতী নষ্ট হওয়ারও কথা আছে। তাই তরুণ উদ্যোক্তা হতে হলে অতি লোভ ও অতি ভয় দূর করতে হবে।

৮। সঠিক বিজনেস খুজে বের করা। আপনি বাকী সব তরুনদের মত না। কারন আপনি একজন উদ্যোক্তা। উদ্যোক্তা হিসেবে আপনাকে সব সময় চোখ কান খোলা রাখতে হবে।

৯।ভুল থেকে শিখতে হবে।

আসুন একটি ছোট গল্প শোনা যাক। যদু ও মধু দুই ভাই। তাদের বাবা একজন ছোট তরমুজ ব্যবসায়ী। একবার তাদের বাবার ফসল কম হওয়ায় তাদের সংসারে খুব অভাব অনাটন চলছে। যেহেতু এইবার ফসল কম তাই দিয়ে সংসার চালাতে হবে। যদু, মধুর বাবা তাদের দুইজন কে ২০টি করে পাকা তরমিজ দিয়ে বললেন, বাবা এই তোমাদের মুলধন।

এই ২০টা তরমুজ দিয়েই তোমাদের সফল হতে হবে। যেই কথা সেই কাজ। দুই ভাই বাজারে গেল এবং রাতে বাবাকে তাদের হিসাব দিল। যদু ইনকাম করেছে ১০০ টাকা আর মধু ইনকাম করেছে ৩০০ টাকা। তাদের বাবা আসল ঘটনা জানতে চাইলে জানা যায় যে, যদু ২০টি তরমুজ পাইকারদের কাছে ৫টাকা দরে বিক্রি করেছে আর মধু তরমুজের সরবত বানিয়ে বিক্রি করেছে বলে সে ৩০০ টাকা বিক্রি করেছে।

এটাই একজন  উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীর মধ্যে পার্থক্য।

খবরটি অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved dainikshokalerchattogram.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com